Skip to content

Diamond Harbour : ডায়মন্ড হারবারে রাম-গান বাজানোয় হামলার অভিযোগ বিজেপির

Ram Navami Celebrations Turn Violent in Maharashtra, Gujarat, and Bengal

রক্ষাকালী পুজোর বিসর্জনের সময় রাম-গান বাজানোয় হামলা! অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের খাসতালুক ডায়মন্ড হারবারে (Diamond Harbour) ধুন্ধুমার। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করল বঙ্গ বিজেপি। এক্সে বিজেপি ঘটনার…

রক্ষাকালী পুজোর বিসর্জনের সময় রাম-গান বাজানোয় হামলা! অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের খাসতালুক ডায়মন্ড হারবারে (Diamond Harbour) ধুন্ধুমার। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করল বঙ্গ বিজেপি। এক্সে বিজেপি ঘটনার ভিডিয়ো পোস্ট করে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে মমতা সরকারকে কড়া আক্রমণ করেছে। রাম নবমীর আগে এই ধরনের ঘটনায় বাংলাজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। 

বঙ্গ বিজেপি সূত্রে খবর, ডায়মন্ড হারবারের সরিষার কলাগাছিয়া এলাকায় গ্রামের বাসিন্দাদের তরফে রক্ষাকালী পুজোর আয়োজন করা গিয়েছিল। পুজো নির্বিঘ্নে মিটলেও সমস্যা তৈরি হয় প্রতিমা নিরঞ্জনের সময়। প্রতিমা নিরঞ্জনের সময় এলাকাবাসী রামের গান বাজাচ্ছিল। বিজেপির মণ্ডল সভাপতি সহ কার্যকর্তারা সেই সময় ওখানে উপস্থিত ছিলেন। আচমকা একদল দুষ্কৃতী তাঁদের ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ।

এক্স হ্যান্ডেলে রাজ্য বিজেপি দাবি করেছে, পুলিশ ঘটনাস্থলে এলেও তাঁরা কার্যত নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করার পরিবর্তে পুলিশ বিজেপির নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করেছে। মোট ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে গেরুয়া শিবির। একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকারকেও নিশানা করেছে বঙ্গ বিজেপি।

এক্স হ্যান্ডেলে বঙ্গ বিজেপি লিখেছে, ‘মমতার ভাইপো এবং তার গুন্ডাদের রাজনৈতিক সন্ত্রাসের জন্য বিখ্যাত জায়গাটি ব্যাপক দাঙ্গার সম্মুখীন হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা হলেন বিজেপি কর্মী এবং মণ্ডল সভাপতি, যারা গেরুয়া পতাকা নিয়ে উদযাপনে মেতেছিলেন।…আশ্চর্যের কিছু নেই, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাম নবমীর সময় সম্ভাব্য সমস্যা সম্পর্কে মন্তব্য করেছিলেন, কারণ তাঁর কাছে পশ্চিমবঙ্গের জনগণের নিরাপত্তা নয়, তুষ্টি অগ্রাধিকার।’

বিজেপি এক্সে আরও লিখেছে, ‘মা রক্ষাকালীর মূর্তি বিসর্জনের সময় কিছু লোক প্রভু রামের গান বাজাচ্ছিল। তাঁদের ওপর প্রাণঘাতী হামলা চালানো হয়। যদিও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে বাহিনী পাঠিয়েছিল, এই ধরনের পরিস্থিতিগুলি দেখায় যে কীভাবে বাংলায় অপরাধমূলক ঘটনা বেড়ে চলেছে। বিজেপির ১১ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ! এটি একটি সম্পূর্ণ পরিকল্পিত সাম্প্রদায়িক হামলা, যার কারণ হল নির্বাচন।’



বার্তা সূত্র