Skip to content

Contai: লোকসভার আগে রামনগরে দুশোর বেশি সংখ্যালঘু পরিবার বিজেপিতে

কাঁথি ( পূর্ব মেদিনীপুর ) কলকাতা জনগর্জন সভায় আগে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জেলা পূর্ব মেদিনীপুরের সংখ্যালঘুর ভোটের উপর থাবা বসালো বিজেপি। শনিবার সকালে কাঁথি…

কাঁথি ( পূর্ব মেদিনীপুর ) কলকাতা জনগর্জন সভায় আগে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জেলা পূর্ব মেদিনীপুরের সংখ্যালঘুর ভোটের উপর থাবা বসালো বিজেপি। শনিবার সকালে কাঁথি সাংগঠনিক জেলা পার্টি অফিসে দুশো বেশি সংখ্যালঘু সম্প্রদায় পরিবার বিজেপিতে যোগদান করেন। রাজ্যের কারাদপ্তরের মন্ত্রী অখিল গিরির বিধানসভা কেন্দ্রে থাবা বাসালো বিজেপি। সংখ্যালঘু পরিবার নয় এদিন বিকালে রামমগরের একটি কির্ষাণ মোর্চার সভায় ৫০ টি পরিবার বিজেপিতে যোগদান করেন। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের হাতে বিজেপির দলীয় পতাকা তুলে দেন কাঁথি সংগঠনীক জেলায় বিজেপির সভাপতি তথা বিধায়ক অরুপ কুমার দাস ও কাঁথি লোকসভা বিজেপি প্রার্থী সৌমেন্দু অধিকারী। রামনগরের ৪ বিধায়ক তথা রাজ্যের কারাদপ্তরের মন্ত্রী অখিল গিরি বিধানসভা কেন্দ্রের সংখ্যালঘু পরিবার বিজেপিতে যোগদান নিয়ে রাজনৈতিক মহলে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।তাহলে কি পূর্ব মেদিনীপুরে সংখ্যালঘু ভোটাররা তৃণমূল থেকে মুখ ফেরাচ্ছে ? যদি ওই যোগদানের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

সূএের খবর, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কারামন্ত্রী বিধানসভা কেন্দ্র রামনগর ২ ব্লকের কালিন্দী গ্রাম পঞ্চায়েতের দুশো বেশি সংখ্যালঘু পরিবার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। কাঁথি সাংগঠনিক জেলা বিজেপির দলীয় পার্টি অফিসে আসেন একাধিক সংখ্যালঘু পরিবার।কাঁথি সংগঠনীক জেলা বিজেপির সভাপতি অরুপ কুমার দাস ও বিজেপির প্রার্থী সৌমেন্দু অধিকারী হাত ধরে ২০০ বেশি সংখ্যালঘু পরিবার যোগদান করেন। এদিকে আবারও রামনগরের সিএস ময়দানে বিজেপির কির্ষাণ মোর্চার সভায় ৫০টি পরিবার তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন।

একাধিক সংখ্যালঘু পরিবার বিজেপিতে যোগদান নিয়ে তৃণমূলের দুর্নীতিকে তুলেছেন বিজেপি নেতৃত্বরা। কাঁথি সংগঠনীক জেলায় বিজেপির সভাপতি তথা দক্ষিণ কাঁথি বিধায়ক অরুপ কুমার দাস বলেন ” তৃণমূলের একাধিক দুর্নীতির কারণেই সংখ্যালঘু ভোটারও মুখ ফেরাচ্ছেন। তৃণমূলের উপর রাজ্যের মানুষের আস্থা নেই। এখন শুধু ট্রেলার দেখছেন, ভোটের আগে সিনেমা দেখবেন “।

রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপির নাটক বলে কটাক্ষ শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। রামনগরে বিধায়ক তথা রাজ্যের কারাদপ্তরের মন্ত্রী অখিল গিরি বলেন ” এরকম ঘটনা ঘটেনি। ভোটের আগে বিজেপি নতুন নাটক শুরু করেছে। এইসব করে নতুন করে প্রচারে আসার চেষ্টা করছে “।

বার্তা সূত্র