Skip to content

BJP Protests: রাতভর থানায় অবস্থান বিক্ষোভে BJP প্রার্থী, ভোটের আবহে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি West Bengal: kolkata-ananadapur-bjp-debasree-chaudhuri-lok-sabha-election-2024-protest-756692

Kolkata Ananadapur BJP Debasree Chaudhuri Lok Sabha Election 2024 protest

Lok Sabha Election 2024: লোকসভা নির্বাচনের (Lok Sabha Election 2024) আবহে রাতভর টানা কলকাতার থানায় অবস্থান BJP-র। বিক্ষোভের নেতৃত্বে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও দক্ষিণ কলকাতার BJP প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরী (Debasree Chaudhuri)। শনিবার সারা রাত ধরে দলীয় কর্মীর উপর হামলায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে আনন্দপুর থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ করে বিজেপি। চলতে থাকে স্লোগানও।

শনিবার রাতে বিজেপির মণ্ডল সভাপতি সরস্বতী সরকার-সহ গেরুয়া দলের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগেই অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে থানা চত্বরে আন্দোলন করে বিজেপি। যদিও তৃণমূল আক্রমণের অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

বিজেপির অভিযোগ, দলের পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র করেই গণ্ডগোলের সূত্রপাত। ১০৮ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল তাদের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। তখন মণ্ডল সভানেত্রী সরস্বতী সরকার আটকাতে গেলে তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হয়। তাঁর কপালে চপার দিয়ে আঘাত করা হয় বলে দাবি বিজেপি নেতৃত্বের। বিজেপির পক্ষ থেকে রাতে জানানো হয়েছে, বেশ কয়েকবার বমি হওয়ায় সরস্বতীকে ইএম বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতেই রাতভর থানায় বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি।

রাতভর বিক্ষোভে হাজির ছিলেন দক্ষিণ কলকাতার BJP প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরী। তিনি বলেন, “দলের মণ্ডল সভানেত্রী সরস্বতী সরকার পোস্টার লাগাতে গেলে তাঁর ওপর তৃণমূল গুন্ডাবাহিনী আক্রমণ করে। এই বাহিনী ১০৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষের ডান হাত নারায়ণ, বিকাশ ও গোপালের নেতৃত্ব হামলা হয়েছে। আরও অনেকের নামে FIR হয়েছে। আনন্দপুর থানার পুলিশ এদের গ্রেফতার করেনি। এদের বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য ধারায় পুলিশ মামলা করেছে। ওসি মিডিয়ার সামনে বলেছিলেন, ৩ ঘন্টার মধ্যে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করবেন। আমাদের লিগাল সেলকে তিনি জানিয়েছিলেন, মোবাইল ট্র্যাক করে গ্রেফতার করা হবে।” আমাদের দাবি, “অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৩০৭ ধারা প্রয়োগ করতে হবে।”

আরও পড়ুন- Mamata Banerjee-Debashis Dhar: কেন বিজেপি প্রার্থী দেবাশিস ধরের মনোনয়ন বাতিল, কারণ জানালেন মমতা

এদিকে এই ঘটনার পর রবিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি ফোন করেন আহত সরস্বতী সরকারকে। সরস্বতী মন্ত্রীকে জানান, “দিদি আমার পাঁচটা সেলাই পড়েছে। ঘটনার সময় সারা শরীর রক্তে ভেসে গিয়েছিল। শরীরের সর্বত্র আঘাত করেছে। মেডিক্যাল করিয়ে ভোর সাড়ে ৪টার সময় এফআইআর করেছি। এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। পুলিশ নাকি কাউকে খুঁজে পায়নি। আমার নামে উল্টে কেস করা হয়েছে। চপার দিয়ে মাথায় আঘাত করেছে। জ্ঞান হারিয়ে পড়ে গিয়েছিলাম। আমি বুঝতে পারিনি।” তাঁর দাবি, “এখানকার কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষ আতঙ্ক করে রেখেছে, কোনও কাজ করতে দেয় না।” স্মৃতি ইরানি তাঁকে নির্বাচন কমিশেন অভিযোগ জানানোর কথা বলেন। পাশাপাশি অমিত মালব্য (Amit Malviya) সরস্বতীর সঙ্গে কথা বলবে বলে তাঁকে জানিয়ে দেন।

সূত্রের খবর, এই ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার না করা পর্যন্ত অবস্থান চালিয়ে যাবে বলে জানিয়ে দিয়েছে বিজেপি। তৃণমূল কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষ জানিয়ে দেন, এই হামলার ঘটনার সঙ্গে তিনি বা তাঁর দল কোনওভাবেই জড়িত নয়। কেউ যদি সত্যি আক্রমণ করে মাথা ফাটিয়ে দেয় তাহলে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।



বার্তা সূত্র