Skip to content

‘২১ জুলাই বিডিও অফিস ঘেরাও বিজেপির’, বিক্ষোভ মঞ্চ থেকে ঘোষণা সুকান্ত মজুমদারের

'২১ জুলাই বিডিও অফিস ঘেরাও বিজেপির', বিক্ষোভ মঞ্চ থেকে ঘোষণা সুকান্ত মজুমদারের

কলকাতা: ‘সিপিএম-কংগ্রেস সেটিং বিরোধী, বিজেপি সেটিং বিরোধী নয়। ২১ জুলাই বিডিও অফিস ঘেরাও করবেন বিজেপি কর্মীরা। যেখানে যেখানে ভোট চুরি সেখানেই বিডিও অফিস ঘেরাও’। কলেজ স্কোয়ারের বিক্ষোভ মঞ্চ থেকে এমনটাই ঘোষণা করলেন ঘোষণা সুকান্ত মজুমদার। এদিন তিনি তৃণমূলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে আরও বলেন, ‘৩৫-এর থেকেও বেশি আসনে লোকসভায় বিজেপি জিতবে। তারপরেই এই রাজ্য সরকার পড়ে যাবে, এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চোর নম্বর ওয়ান। মুখ্যমন্ত্রীকে প্রাক্তন করে তাঁকে আমরা ছাপ্পাশ্রী উপাধি দেব। বিডিও মানে এখন বেচারা দিদির অফিসার। আগামীদিনে এরকম হলে বিডিওদের অসুস্থ করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব বিজেপি নেবে। মরছে সংখ্যালঘু, মারছে সংখ্যালঘু। পুলিশকেও সুরক্ষা দিতে পারে না, সাধারণ মানুষকে’।                                    

মেলেনি পুলিশের অনুমতি। তারপরও, পঞ্চায়েত ভোটে সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে আজ পথে নামল বিজেপি। বিজেপির দাবি, পঞ্চায়েত ভোটে ১১জন দলীয় কর্মী খুন হয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ৩ হাজার কর্মী।  তাঁদের মধ্যে ৬৫০ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। পঞ্চায়েত ভোটে ১২ হাজার ৪৯২টি বুথ দখল হয়েছে এবং ২১ হাজার বুথে ভোটই না হওয়ার অভিযোগ তুলছে বিজেপি। এ সবের প্রতিবাদে, আজ রাজপথে নামেন তারা। কলেজ স্কোয়ার থেকে রানি রাসমণি অ্যাভিনিউ পর্যন্ত যায় বিজেপির মহা মিছিল। গতকালই তাঁরা জানিয়েছিলেন, পুলিশের অনুমতি না মিললেও, তাঁরা মহা মিছিল করবেন। এ দিন সেই মতোই ঠিক সময়ে কলেজ স্কোয়ারের সভামঞ্চে পৌঁছে যান সুকান্ত-দিলীপ। সভামঞ্চে আসেন শুভেন্দু অধিকারীও।

‘বিডিও-র নাম এখন হয়েছে বেচারা দিদির অফিসার’। এবার এভাবেই সরাসরি BDO-দের আক্রমণ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। পক্ষপাতিত্ব থেকে কারচুপি! এবারের পঞ্চায়েত ভোটে, বেনজিরভাবে এমন সব অভিযোগ উঠেছে BDO-দের বিরুদ্ধে! একাধিক বিডিও-কে ডেকে পাঠিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট! জেলায় জেলায় BDO-দের বিরুদ্ধে পথে নেমেছে বিরোধীরা! বিডিও অফিস ঘেরাও থেকে বিডিওকে ঘিরে বিক্ষোভ, আঙুল উঁচিয়ে শাসানি অকথ্য গালিগালাজ করা, বাদ যায়নি কিছুই। BDO-দের কালো গোলাপ দেওয়ার কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি! এবার একধাপ এগিয়ে 

BDO অফিস ঘেরাও অভিযানেরও ডাক দিল তারা! ২১ জুলাই যেদিন ধর্মতলায় শ্রদ্ধা দিবস পালন করবে তৃণমূল,  সেদিনই জেলায় জেলায় এই কর্মসূচি পালন করবে গেরুয়া শিবির। সব মিলিয়ে, তৃণমূল-বিজেপির জোড়া কর্মসূচি ঘিরে, রাজ্য রাজনীতির মেগা কার্নিভাল হতে চলেছে ২১ জুলাই।

আপনার পছন্দের খবর আর আপডেট এখন পাবেন আপনার পছন্দের চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম টেলিগ্রামেও। যুক্ত হোন

https://t.me/abpanandaofficial

বার্তা সূত্র