Skip to content

হাতে ত্রিশূল, এলাচ আর হলুদের মালায় ঢাকা মুখ, মোদির নয়া অবতারের অর্থ জানেন?

Secret behind Narendra Modi

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি লাক্ষাদ্বীপে প্রকৃতিপ্রেমী পর্যটক। স্কুবা ডাইভার। কখনও যুদ্ধবিমানে বায়ুসেনার স্মার্ট সঙ্গী। কখনও বা রামভক্ত, তিনিই আবার শিবশম্ভুর নিষ্ঠাবান উপাসক। কপালে তিলক, ত্রিশূল হাতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। থিকথিকে ভিড়ের মাঝে রাতের বারাণসীতে নতুন অবতারে জনতার দরবারে দেখা গিয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে। গত শনিবার রাতে কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরে পুজো দেন তিনি। ত্রিপুণ্ডক তিলক, একাধিক মালায় সজ্জিত প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশাল মিডিয়ায়। জানেন এই আচার ও সাজের অর্থ কি?

শ্রী কাশি বিশ্বনাথ মন্দির কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, সেদিন ঈশ্বরের কাছে তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সংকল্প করেছেন মোদি। পঞ্চোপচার, ষোড়শপচর, রাজোপচর যোগে পুজো দেন বাবা বিশ্বনাথকে। রুদ্রশুক্তোর মন্ত্রপাঠ করেন। শ্রী কাশি বিশ্বনাথ মন্দির ট্রাস্টের সভাপতি অধ্যাপক নাগেন্দ্র পাণ্ডে জানান, আপন ইচ্ছেপূরণে এই প্রক্রিয়ায় পুজো দেন ভক্ত। উল্লেখ্য, ২০১৪ এবং ২০১৯ সালেও জয়ের সংকল্পে ষোড়শপচারে বাবা বিশ্বনাথের পুজো দিয়েছিলেন। কিন্তু মোদির মাথা থেকে গলা অবধি এলাচ, হলুদের মালা কেন?

 

[আরও পড়ুন: CAA চালু হতেই শুভেন্দুর মুখে মতুয়াদের ‘হরি বোল’, ধরনার হুঁশিয়ারি মমতাবালার]

হিন্দু বিশ্বাস হল এলাচের মালা আধ্যাত্মিকতা বাড়ায়। তাছাড়া এলাচ শুক্রকে প্রভাবিত করে। এর প্রভাবে জীবনে উন্নতি হয়, জ্ঞান-বোধ বাড়ে। এবং এলাচের মালা ভক্তদের মনোবাঞ্ছা পূরণ করে। মোদির কপাল বিশেষ তিলকও দেখা গিয়েছে। যাকে হিন্দু আচারে বলা হয় ত্রিপুণ্ড। এই তিলক নেতিবাচক চিন্তাকে সরিয়ে শান্তি আনে মনে।

শিব পুরাণে বলা হয়েছে, ভক্তদের কপালে ত্রিপুণ্ড থাকলে অশুভ শক্তি ছুঁতে পারে না। এছাড়াও ত্রিপুণ্ড তিলকের প্রভাবে ইতিবাচক শক্তিতে ভরে ওঠে জীবন। মেলে সুখ ও শান্তি। উল্লেখ্য, একই দিনে ত্রিশূল হাতে মোদির ছবিও সমাজমাধ্যমে ছড়িয়েছিল। যা দেখে অনেকে মন্তব্য করেছিলেন, লোকসভা ভোটের আগে হিন্দুদের আকৃষ্ট করার জন্যই ত্রিশুল হাতে দেখা গিয়েছে মোদিকে। যদিও প্রকৃত কারণ কিন্তু অন্য।

 

[আরও পড়ুন: অবশেষে কার্যকর CAA, কী এই আইন? কেন এনিয়ে এত বিতর্ক?]

আসলে ত্রিশূল নেতিবাচকতা দূর করে। ব্যক্তির আধ্যাত্মিক জীবনের দিকে এগিয়ে যায়। ত্রিশূল একজন ব্যক্তির অহংকার দূর করে এবং তাঁকে প্রভুর সান্নিধ্যে আসার সুযোগ করে দেয়। জড় জীবন ত্যাগ করে সত্যকে উপলব্ধি করে। এমনটাই মনে করা হয় ধর্ম মতে। সেই কারণেই ত্রিশুল হস্তে দেখা গিয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে।

প্রসঙ্গত, বারাণসী মোদির লোকসভা কেন্দ্রও বটে, ফলে কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরে পুজো দেওয়া যে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক প্রচারের একটি অংশ, তা আর বলে দিতে হয় না। সেই কারণেই পুজো-আচ্চার সময় সঙ্গী হন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ



সংবাদ সূত্র