Skip to content

স্কুল-কলেজে হিজাব পরার দাবি নিয়ে মুর্শিদাবাদে বিক্ষোভ মুসলিম মহিলাদের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ কর্ণাটক হিজাব বিতর্কের রেশ এবার ছড়িয়ে পরলো বাংলার বুকে। কর্ণাটক থেকে শুরু হওয়া এই বিতর্ক ধীরে ধীরে দেশের রাজনীতিতে উঠে আসে। এই বিতর্ক কলেজ থেকে হাইকোর্টে এবং অফিস থেকে অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছড়িয়ে পড়ে। এবার এই বিতর্কের ফলে বিক্ষোভে সামিল হলেন পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মহিলারা।

কর্নাটকের একটি কলেজে কিছু ছাত্রী হিজাব পড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢোকার চেষ্টা করলে সেখানকার কর্তৃপক্ষ এবং বিজেপির বিধায়ক তাদের ধর্মীয় পোশাক পড়ে কলেজে ঢুকতে বাধা দেয়। ছাত্রীরাও অনড় থাকলে এই নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। পরবর্তীকালে এই বিতর্ক নিয়ে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট এর সূচনা ঘটে এবং বিজেপি ও বিরোধী সকল দলের মধ্যে বাকযুদ্ধ শুরু হয়। এরপর কর্ণাটক হাইকোর্টে মামলা শুনানি হয় এবং হাইকোর্ট জানিয়ে দেয় ধর্মীয় পোশাক পরে কলেজে ঢোকা নিষেধ। অর্থাৎ এক্ষেত্রে সেই কলেজ ছাত্রীদের হার হয় বলে বিশেষজ্ঞদের মত। কিন্তু হাইকোর্টের রায়দান এর পরেও এই বিতর্ক থেমে থাকতে চায়না।

দেশের একাধিক স্থানে বিক্ষোভ থেকে একাধিক আন্দোলন সংঘটিত হয়। এবার সেই আন্দোলনের আঁচ পাওয়া গেল বাংলার বুকে। শুক্রবার মুর্শিদাবাদ জেলার রঘুনাথগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড-এ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মহিলারা বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগঠিত করে। তাদের প্রধান অভিযোগ ছিল, বিজেপি সরকার তাদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছে এবং এক সুকৌশলে তারা তাদের শিক্ষা গ্রহণের অধিকারের ওপর হস্তক্ষেপ করতে চলেছে। ধর্মীয় ভাবাবেগে হস্তক্ষেপ করার জন্য তারা কেন্দ্র এবং কর্ণাটকের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে এবং রঘুনাথগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে একাধিক মুসলিম সম্প্রদায়ের মহিলারা সম্মিলিত হয়।

ওই বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত হয়েছিলেন আলিয়া পারভিন, ন্যাশনাল হিউম্যান ওয়েলফেয়ার থেকে মাসুদ হাসান,রেহেনা খাতুন, তুহিনা পারভিন ও নিশাত জাহান ।

বার্তা সূত্র