সোমবার থেকে স্কুল খুলছে ভারতের পঞ্জাবে

সোমবার থেকে স্কুল খুলছে ভারতের পঞ্জাবে

মহামারি করোনার বিরুদ্ধে এখনো যুদ্ধ করে চলেছে ভারত। বিভিন্ন বিধিনিষেধের মধ্যে দিয়েই চলছে এখনো বিভিন্ন রাজ্য। করোনা মহামারি, লকডাউনে পড়াশোনার যথেষ্ট ক্ষতি হয়েছে। 

যদিও মারণ করোনার প্রকোপ কমেনি এখনো। যদিও পড়াশোনার দিকটা চিন্তা করে আর স্কুল বন্ধ রাখতে নারাজ পঞ্জাব সরকার। আর তাই কোভিড সতর্কতা মেনেই ২ অগস্ট, সোমবার থেকে স্কুল খোলার নির্দেশ দিল। খুলে যাবে স্কুল। দ্বাদশ পর্যন্ত সব শ্রেণির পঠনপাঠন চালু করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদিও সবরকম সতর্কতাই অবলম্বন করতে হবে। তাছাড়া সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে। 

আগামি ১০ আগস্ট পর্যন্ত কোভিড বিধিনিষেধ চালু রয়েছে পঞ্জাবে। এর মধ্যে শনিবার পঞ্জাব সরকারের তরফে স্কুল চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্কুলে সবরকম করোনা সতর্কতা মেনে চলতে হবে। করোনা যেন ছড়াতে না পারে। মহামারির সময় একেবারে শেষ হয়ে গিয়েছে শিশুদের পড়াশোনা। তাদের মানসিক অবস্থাও খারাপ। 

আর করোনার বিরুদ্ধে শিশুদের প্রতিরোধ ক্ষমতাও বেশি। স্কুলের পঠনপাঠন বন্ধ রাখার প্রয়োজন নেই বলে সম্প্রতি জানান বিশেষজ্ঞরা। প্রসঙ্গত, পঞ্জাবে এখনো পর্যন্ত ৫ লক্ষ ৯৯ হাজার ২০৯ জন করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। সংক্রমণে মারা গিয়েছেন ১৬ হাজার ২৯২ জন করোনা রোগী।

গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৮ জন। মারা গিয়েছেন ২ জন রোগী। এদিকে– শনিবার, ৩১ জুলাই দৈনিক করোনা সংক্রমণ ৪০ হাজারের উপরে। এর মধ্যে বিশেষভাবে চিন্তা বাড়াচ্ছে কেরলের কোভিড সংক্রমণ। যদিও সেরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাফাই বা দাবি— করোনা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে। সমস্যা হচ্ছে টিকার অভাবে।

শনিবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ৪১ হাজার ৬৪৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সংখ্যাটা ৪০ হাজারের উপরেই। ফলে ভারতে সর্বমোট মারণ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১৬ লক্ষ ১৩ হাজার ৯৯৩ জনে। 

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আপাতত করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা হচ্ছে ৪ লক্ষ ২৩ হাজার ৮১০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসের আক্রমণে মারা গিয়েছেন ৫৯৩ জনের। এই সংখ্যাটা অবশ্য আগের দিনের তুলনায় সামান্য বেশি।স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৭ হাজার ২৯১ জন।  

এদিকে আপাতত চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা হচ্ছে ৪ লক্ষ ৮ হাজার ৯২০ জন। এখনও পর্যন্ত করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩ কোটি ৭ লক্ষ ৮১ হাজারের অধিক মানুষ। সংখ্যাটা— ৩,০৭, ৮১, ২৬৩। ভ্যাকসিনের অভাব চলছে। এর মধ্যে ভারতে করোনা ভ্যাকসিন পেয়েছেন ৪৬ কোটি ১৫ লক্ষ ১৮ হাজার ৪৭৯ জন।

সংবাদ সূত্র

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ সংবাদ