Skip to content

সাধারণ সম্পাদক কে, শেখ হাসিনা সিদ্ধান্ত নেবেন: হাছান মাহমুদ

সাধারণ সম্পাদক কে, শেখ হাসিনা সিদ্ধান্ত নেবেন: হাছান মাহমুদ

ঢাকা: সম্মেলনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কোনো পরিবর্তন আসবে কি না, সিদ্ধান্ত নেবেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কে কোন পদে থাকবেন, তা একমাত্র তিনি নির্ধারণ করবেন।

এমনটি বলেছেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।  

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে দুটি বইয়ের মোড় উন্মোচন এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে যেসব নাম আছে, তার মধ্যে আপনার নামও আছে কি না- জানতে চাইলে হাছান মাহমুদ বলেন, সম্মেলন হলে অনেক নাম আসবে। তবে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কে কোন পদে থাকবেন, তা একমাত্র তিনি নির্ধারণ করবেন।  

আপনি আশাবাদী কি না- জানতে চাইলে তিনি স্বভাবসুলভ হাসি দিয়ে বলেন, তিনিই (শেখ হাসিনা) ঠিক করবেন।

সম্মেলনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কোনো পরিবর্তন আসছে কি না জানতে চাইলে দলের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের দলে জননেত্রী শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই। আওয়ামী লীগের প্রত্যেক কর্মী-সমর্থক চান, শেখ হাসিনা যতদিন বেঁচে আছেন, ততদিন দলকে নেতৃত্ব দেবেন।  

তিনি বলেন, কেবল দলই না, রাষ্ট্র পরিচালনায়ও তার (শেখ হাসিনা) বিকল্প আজ বাংলাদেশে নেই। তিনি যেভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, একটি অনুন্নত দেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছেন, উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যাওয়ার জন্য তার যে প্রাণান্তকর চেষ্টা, তাতে বিশ্ব সম্প্রদায় তার প্রশংসা করেছেন। তার বিকল্প আওয়ামী লীগে কেউ নেই।  

আওয়ামী লীগের সম্মেলন সবসময় জাতির জন্য মাইলফলক- উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগের সম্মেলন থেকে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বার্তা থাকে। এখন রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও রাজনীতির জন্য বার্তা থাকে। আর বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি এখনো মাঝে মাঝে ফণা তুলছে। আর আমাদের দেশকে নিয়ে বিএনপিসহ এর মিত্ররা যেভাবে ষড়যন্ত্র করছে, এই প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগের সম্মেলন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।  

স্বাধীনতাবিরোধী ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে মোকাবিলায় আওয়ামী লীগের আসন্ন সম্মেলনে দিক নির্দেশনা থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে আবারও ভূমিধস বিজয় ছিনিয়ে আনতে আমাদের দলকে আরও শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করিয়ে সুসংগঠিত করা হবে।

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরতে গিয়ে তিনি বলেন, সব সূচকেই বাংলাদেশ আজ পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে। এ নিয়ে পাকিস্তানের রাজনীতিবিদদের মধ্যে প্রচণ্ড বিতর্কও হয়। স্বাধীনতার ৫১ বছর পর বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্র রচনার সার্থকতা আমরা দেখতে পেয়েছি। শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনার সার্থকতা সেখানেই যে, আজ পাকিস্তান আমাদের দিকে তাকিয়ে নিঃশ্বাস ফেলে।

বাংলাদেশ এখন  বৈদেশিক ঋণ প্রত্যাখ্যান করে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ এক সময় পর-মুখাপেক্ষী ছিল। বাজেট প্রণয়নের জন্য বিদেশিদের ওপর নির্ভরশীল থাকতে হতো। আমাদের অর্থমন্ত্রীকে প্যারিস কনসোর্টিয়ামের বৈঠকে ছুটে যেতে হতো। আমাদের বাজেটের বেশির ভাগ অংশ আসত অনুদান ও ঋণ থেকে। এখন পরিস্থিতি উল্টে গেছে। আমাদের ৯০ শতাংশ আমরা নিজেরা যোগান দিই। বাংলাদেশ এখন নিজের পায়ের দাঁড়িয়ে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২২, ২০২২
জিসিজি/আরএইচ



বার্তা সূত্র