শেষ সময় অর্ধেক দামেও মিলছে না ক্রেতা

বিক্রির একেবারে শেষ দিন শেষ সময় রাজধানীর কুরবানির পশুর হাটগুলোতে অর্ধেক দামেও মিলছে না ক্রেতা। বাজারে এখনো গরু আছে পর্যাপ্ত। বিক্রেতার সংখ্যাই বেশি। কপালে চিন্তার ভাঁজ গরুর ব্যাপারীদের। হতাশ তারা। একই অবস্থা ছাগল বিক্রিতেও। দুপুরে যে গরু ৭০ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। সন্ধ্যার পরপরই সে গরু মিলছে ৩৫ থেকে ৪০ হাজারে। তারপরও মিলছেনা ক্রেতা।

এমন দৃশ্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন শাহজাহানপুর রেলওয়ে কলোনি মাঠসংলগ্ন হাটে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে প্রায় প্রতিটি হাটেই একই অবস্থা।

নড়াইল থেকে মাজেদুল ইসলাম ১৫ টি গরু নিয়ে এসেছেন শাজাহানপুর হাটে। এখনো তার ৫ টি গরু অবিকৃত রয়ে গেছে। দুপুরে যে দামে গরু ছাড়েননি তিনি, এখন গরু প্রতি ১০ হাজার টাকা কম দিয়েও ক্রেতা মিলছে‌না তার। একই সাইজের গরু সকালেও ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন। সে গরু ৬০ হাজার টাকায় ছাড়তে রাজি হলেও দাম বলেই অনেকে চলে যাচ্ছেন।

তিনি জানান, কপাল খারাপ হলে যা হয়। প্রতি ঈদে চাঁদরাতে গরু ন্যায্য দামেই বিক্রি করি। এবার পুরো চিত্র উল্টো। শেষ পর্যন্ত গরুগুলো বিক্রি না হলে আরো বেশি গাড়ি ভাড়া দিয়ে বাড়িতে নিয়ে যেতে হবে।

এদিকে পশু বিক্রেতাদের মুখে হতাশা দেখে ইজারাদার বারবার মাইকে নানা ভাবে গরু বিক্রি হয়ে যাবার আশ্বাস দিচ্ছেন। এর পরেও গরু নিয়ে চিন্তা কাটছেনা বিক্রেতাদের।

ফরিদপুর থেকে আব্দুস সাত্তার গত শুক্রবার চারটি গরু নিয়ে এসেছিলেন। আজ রাত পর্যন্ত একটিও বিক্রি করতে পারেননি। তার অভিযোগ, যে গরু ১ লাখ ১৫ হাজার টাকায় কেনা। সে গরু ৯০ হাজার টাকাও কেউ দাম করছে না। তাহলে বিক্রি করব কিভাবে। ক্ষোভে দুঃখে গরু বিক্রি না করেই তিনি ফরিদপুরে নিয়ে যাওয়ার কথা জানালেন।

তথ্যসূত্র ঃ ভোরের কাগজ

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email