Skip to content

যদি টাকার প্রয়োজন, আমার কাছে নিয়ে নাও! তবে এমন ছোট ছোট চরিত্র করবে না, অমিতাভ বচ্চন কে বলেছিলেন শশী কাপুর

যদি টাকার প্রয়োজন, আমার কাছে নিয়ে নাও! তবে এমন ছোট ছোট চরিত্র করবে না, অমিতাভ বচ্চন কে বলেছিলেন শশী কাপুর

অমিতাভ বচ্চন, হ্যাঁ যাকে আমরা এক কথায় বিগ বি বলে চিনি। যিনি বর্তমান প্রজন্মের কাছে একজন আইডল। যিনি উনবিংশ শতকের এমন একজন নায়ক, যিনি কিনা আজও আমাদের মনোরঞ্জন করে চলছেন একইভাবে। যেখানে ঋষি কাপুর,শশী কাপুর অথবা বিনোদ খান্নার মত নায়করা অভিনয় জগৎ থেকে বিরতি নিয়েছেন, সেখানে আজও সমান দক্ষতার সঙ্গে সকলকে সামনে এগিয়ে চলার একটি শিক্ষা দিয়ে চলেছেন অমিতাভ বচ্চন।

তবে আজ যে জায়গায় তিনি দাঁড়িয়ে রয়েছেন, সেই জায়গাটি খুব সহজে আসেনি। রেডিও স্টেশন থেকে প্রত্যাখ্যান, একের পর এক সিনেমা ফ্লপ, সুদর্শন অভিনেতা না হওয়ার জন্য সেই ভাবে পরিচালকরা তাঁদের সিনেমায় নিতে চাইতেন না এই অভিনেতাকে।

কিন্তু কোন কিছুই মনোবল ভাঙতে পারেনি অমিতাভ বচ্চনের। দীর্ঘদিনের লড়াই আজ তাঁকে এই জায়গায় এনে দাঁড় করিয়েছে। অমিতাভ বচ্চন যখন “সাত হিন্দুস্তানি” তে অভিনয় করছেন, তখন শশী কাপুর হিন্দি সিনেমার একজন সুপরিচিত তারকা। শশী কাপুর অমিতাভ বচ্চনকে বেশ কয়েকজন চলচ্চিত্র নির্মাতার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন।

কিন্তু কেনো? কি হয়েছিল? শশী কাপুরের সঙ্গে অমিতাভ বচ্চনের আলাপ হয়েছিল একটি সিনেমার সেটে। একটি সিনেমায় শশী কাপুরের একটি দৃশ্য দেখানো হচ্ছিল, যেখানে শশী কাপুরের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে এবং সেই দৃশ্যটি শুট করার জন্য বেশ জনসাধারনের ভিড়ের প্রয়োজন ছিল। আশ্চর্যজনকভাবে অমিতাভ বচ্চন ছিলেন সেই ভিড়ের মানুষের মধ্যে একজন। শশী কাপুর ভিড়ের মধ্যে অমিতাভ বচ্চনকে লক্ষ্য করেন এবং তাঁকে ডেকে নিয়ে বলেন, “এত ছোট ছোট রোলে কেন আপনি অভিনয় করছেন। আপনার জন্য এই চরিত্র একেবারেই মানায় না”। এই কথা শুনে অমিতাভ তাঁকে বলেন, “আমার কিছু টাকার প্রয়োজন। তাই আপাতত যে চরিত্র পাচ্ছি সেই চরিত্রই করছি”।

এ কথা শুনে শশী কাপুর বলেন, “যদি অর্থের প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্যই আমার থেকে তুমি নিতে পারো কিন্তু এমন ছোটখাট চরিত্র তুমি করো না”। কিন্তু এত কিছুর পরেও অমিতাভ বচ্চন সেদিন সেই সিনেমার শুটিং করেছিলেন জনসাধারণের দৃশ্যের, যা দেখে শশী কাপুর বুঝতে পেরেছিলেন অমিতাভ বচ্চনের সত্যিই প্রয়োজন অর্থের।

শুটিং শেষে শশী কাপুর ছবির পরিচালককে ডেকে বলেন যে দৃশ্যের অমিতাভকে দেখানো হচ্ছে সেই দৃশ্যটি যেন সিনেমায় না দেখানো হয়। পরিচালক শশী কাপুরের কথামতো দৃশ্যটি সিনেমায় রাখেননি। আপাতদৃষ্টিতে এই ঘটনাটি খুব সাধারণ হলেও ভবিষ্যতে এই দৃশ্যটি না থাকার কারণে অমিতাভ বচ্চনকে কেউ সাইড আর্টিস্ট বলে চিনলেন না এবং আজ সেই ঘটনার কারণে অমিতাভ বচ্চন এক বিরাট বড় তারকাতে পরিণত হয়ে গেলেন।

বার্তা সূত্র