Skip to content

মিশরের পুলিশ চেকপোস্টে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৪

মিশরের ইসমাইলিয়ার সুয়েজ খাল শহরে একটি পুলিশ চৌকিতে হামলায় অন্তত চারজন নিহত ও ১২ জন আহত হয়েছে। মিশরীয় কর্মকর্তা ও চিকিৎসা সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আল-জাজিরা।

অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস জানিয়েছে, একটি হাসপাতালের নথিতে দেখা গেছে, নিহতদের মধ্যে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তা এবং একজনের পরিচয় এখনও অজ্ঞাত রয়েছে।

নথি অনুসারে, আহতদের বেশিরভাগই নিয়োগপ্রাপ্ত এবং তাদের হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের মতে, শুক্রবার বিকেলে সুয়েজ খালের পশ্চিম দিকে হামলাটি ঘটেছিল। ইসমাইলিয়া প্রদেশের মিডিয়া অফিস এই হামলাকে ‘সন্ত্রাসী’ হামলা বলে বর্ণনা করেছে।

রাষ্ট্র পরিচালিত আল-কাহেরা নিউজ জানিয়েছে, নিরাপত্তা বাহিনী একজন হামলাকারীকে হত্যা করেছে। তবে কোনো গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেনি।

মিশর বছরের পর বছর ধরে সিনাই উপদ্বীপের উত্তরাঞ্চলে আইএসআইএল (আইএসআইএস) যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াই করে আসছে।

নিরাপত্তা বাহিনী ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিনাই, নীল বদ্বীপের কিছু অংশ এবং লিবিয়ার সঙ্গে দেশের পশ্চিম সীমান্ত বরাবর মরুভূমিতে সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদস্যদের নির্মূল করার জন্য একটি বিস্তৃত প্রচারাভিযান শুরু করে।

প্রচারাভিযানের সময় সামরিক বাহিনীর হাতে ১ হাজার জনের বেশি যোদ্ধা নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যদিও উপদ্বীপে মিডিয়া ব্ল্যাকআউটের মধ্যে পরিসংখ্যান যাচাই করা কঠিন।

আইএসআইএল সিনাই এবং দেশের অন্যত্র অসংখ্য হামলা চালিয়েছে। প্রধানত নিরাপত্তা বাহিনী, সংখ্যালঘু খ্রিস্টান এবং যাদেরকে তারা সামরিক ও পুলিশের সাথে সহযোগিতার অভিযোগ এনেছে তাদের লক্ষ্য করে হামলাগুলো চালানো হয়েছে।

মে মাসে সুয়েজ খালের পূর্বে একটি জল পাম্পিং স্টেশনে হামলায় একজন অফিসারসহ কমপক্ষে ১১ মিশরীয় সৈন্য নিহত হয়েছিল।

২০১৯ সালের মে মাসে, মিশরের গিজা পিরামিডের কাছে একটি হামলায় ১৭ জন আহত হয়েছিল, যাদের মধ্যে অনেকেই বিদেশী পর্যটক ছিলেন। একই বছরের আগস্টে কায়রোতে বিস্ফোরক বোঝাই একটি গাড়ি অন্য দুটি গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন নিহত হয়েছিল।

ইসমাইলিয়া হল মিশরের সুয়েজ খালকে উপেক্ষা করা অন্যতম প্রধান শহর, যা এশিয়া এবং ইউরোপের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ জলপথ। এই পথে বিশ্বের প্রায় ১০ শতাংশ সামুদ্রিক বাণিজ্য পরিচালিত হয়। খালটি মিশরের জন্য বৈদেশিক মুদ্রার একটি প্রধান উৎস। দেশটি বর্তমানে ক্রমহ্রাসমান মুদ্রা এবং ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতির সঙ্গে লড়াই করছে।

(ঢাকাটাইমস/৩১ডিসেম্বর/ এসএটি)



বার্তা সূত্র