মামুনুল হকের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

মামুনুল হকের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরকালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর দিনে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ, সহিংসতার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার রেশ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়লে ঘটে প্রাণহানির ঘটনা। এরপরই হরতালের ডাক দেয় হেফাজতে ইসলাম। ২৬ থেকে ২৮ মার্চ- এই চার দিনের সহিংসতায় দেশে ১৭ জনের মৃত্যুর হয়। এসব সহিংসতার ঘটনায় সারা দেশে প্রায় অর্ধশতাধিক মামলা হয়েছে।

তবে, সবকিছু ছাপিয়ে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়াল রিসোর্টে এক নারীসহ অবরুদ্ধ হন মামুনুল হক। গত শনিবার (৩ এপ্রিল) এ ঘটনার পর থেকে তাদের নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ হচ্ছে না। গ্রামের চায়ের দোকান থেকে শুরু করে আলোচনা-সমালোচনা চলছে জাতীয় সংসদেও। যদিও মামুনুল হকের দাবি, ওই নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী।

এরপরই সরকারের একাধিক মন্ত্রী হেফাজতের তাণ্ডবের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে যাওয়ার কথা বলেছেন। গত ৪ এপ্রিল বিষয়টি নিয়ে সংসদে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। পাশাপাশি সাদা পোশাকে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও তার গতিবিধি নজরদারি করছেন। এরইমধ্যে গত দুই দিনে ঢাকায় ও নারায়ণগঞ্জে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়েছে। 

২৬ মার্চ জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে সহিংসতার ঘটনায় ৫ এপ্রিল হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকসহ ১৭ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। এ ছাড়া দুই থেকে তিন হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। মামলায় এক নম্বর আসামি করা হয়েছে মামুনুল হককে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক খন্দকার আরিফুজ্জামান বাদী হয়ে পল্টন থানায় মামলাটি করেন।

আর সোনারগাঁ উপজেলার রয়্যাল রিসোর্টে গত শনিবার মামুনুল হক নারীসহ ঘেরাও হওয়ার ঘটনায় ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রাতে সোনারগাঁ থানায় তিনটি মামলা হয়েছে। 

দুটি মামলা পুলিশ বাদী হয়ে ও অপর মামলাটি আহত এক সাংবাদিক বাদী হয়ে করেছেন। এই তিন মামলার মধ্যে একটি মামলায় মামুনুল হককে প্রধান আসামিসহ ৮৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় আরও ৬শ’ জনকে ‘অজ্ঞাতনামা’ হিসেবে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জের ঘটনার পর থেকে একের পর এক মাওলানা মামুনুল হকের কণ্ঠের মতো অডিও ফাঁস হচ্ছে। এসব অডিও ইতোমধ্যে সামাজিকমাধ্যম ইউটিউব ও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

সম্প্রতি মামুনুল হকের কণ্ঠের ন্যায় চারটি অডিও ফাঁস হয়েছে। তবে এসব অডিওতে যে কণ্ঠ উঠে এসেছে তা মামুনুল হকের কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায় নি। একইভাবে নারী কণ্ঠের যে অডিও ফাঁস হয়েছে সেটি রিসোর্টে অবরুদ্ধ নারী জান্নাত আরার কি না তাও নিশ্চিত হওয়া যায় নি। 

এর আগে, এই আলোচিত বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন মামুনুল হকের ‘দ্বিতীয় স্ত্রী’ দাবি করা ওই নারীর ছেলে আব্দুর রহমান। সোমবার (৫ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মাওলানা মামুনুল হক সম্পর্কে ক্ষোভ প্রকাশ করে আব্দুর রহমান তিন মিনিট দুই সেকেন্ডের একটি বক্তব্য দেন। যা মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়।

DMCA.com Protection Status

সূত্র: সময় টিভি

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email