Skip to content

মাছ চাষে উৎসাহ বাড়াতে সুন্দরবনে প্রশিক্ষণ ও মাছের মীণ বিতরণ

মাছ চাষে উৎসাহ বাড়াতে সুন্দরবনে প্রশিক্ষণ ও মাছের মীণ বিতরণ

#বাসন্তীঃ সুন্দরবন এলাকার দুঃস্থ অসহায় তপশিলি জাতি, উপজাতি গোষ্ঠীর মানুষদেরকে স্বনির্ভর করতে তাঁদের মাছ চাষে উৎসাহ যোগাতে উদ্যোগী হল কেন্দ্রীয় অন্তঃস্থলীয় মৎস্য গবেষণা সংস্থা। সংস্থার ব্যারাকপুর শাখার উদ্যোগে ইতিমধ্যেই সুন্দরবনের বিভিন্ন প্রান্তে এই উদ্যোগ আগেও নেওয়া হয়েছে। নতুন করে আরও পাঁচশো পরিবারকে এই কর্মসূচির আওতায় আনা হল। সংস্থার তরফে সুন্দরবনের প্রান্তিক এলাকার মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হয় মাছের চারা মাছের খাবার। সুন্দরবনের এই এলাকায় বছরে একবার ধান চাষ হয়।

কিন্তু তাও প্রতিবছর ঘূর্ণিঝড়, অতি বর্ষণ কিম্বা কম বৃষ্টির মতো প্রাকৃতিক খামখেয়ালির ফলে সেই চাষ আজ অনিশ্চয়তার মুখে। পাশাপাশি বিগত কয়েক বছরের করোনা মহামারী, লকডাউন আমপান, ফনি, ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে এইসব প্রান্তিক মানুষরা কার্যত দিশাহারা। এবার তাঁদের পাশে দারাতেই উদ্যোগ নিয়েছে এই কেন্দ্রীয় সংস্থা। এই এলাকার প্রতিটি বাড়িতে কার্যত পুকুর রয়েছে। আর সেই পুকুরকে কাজে লাগিয়ে তাঁদেরকে বিকল্প পেশা হিসেবে মাছ চাষে উদ্বুদ্ধ করতে বিগত এক বছরের বেশি সময় ধরে উদ্যোগ চালিয়ে যাচ্ছে এই কেন্দ্রীয় সংস্থা।

আরও পড়ুনঃ কাকদ্বীপে পোস্ট মাস্টারের রহস‍্য মৃত্যু! খুনের অভিযোগ পরিবারের

কুলতলি মিলনতীর্থ সোসাইটিকে সাথে নিয়ে এই সংস্থা ইতিমধ্যেই এক হাজার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে। লাগাতার মাছের চারা, খাবার বিতরণ করছে বিনামূল্যে। মাছ চাষ করে গত এক বছরে অনেক পরিবারই আর্থিক সচ্ছলতা লাভ করেছে। কেন্দ্রীয় অন্তঃস্থলীয় মৎস্য গবেষণা সংস্থার অধিকর্তা বসন্ত কুমার দাস বলেন, “সুন্দরবনের ৮০ শতাংশ মানুষের ছোট বড় পুকুর আছে ,এখানে উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে মাছ চাষ করতে পারলে সুন্দরবনের সুন্দরবনের অর্থনীতিতে নতুন দিশা আসবে। সুন্দরবনবাসীরা স্বনির্ভর হতে পারবেন। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি।

আরও পড়ুনঃ কনকনদিঘীর ঘোষপাড়ার রাস্তার অবস্থা তথৈবচ, ক্ষোভে ফুঁসছেন এলাকাবাসী!

কুলতলি মিলনতীর্থ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা লোকমান মোল্লা বলেন, “ সুন্দরবনের মানুষ কার্যত অসহায়। লাগাতার প্রাকৃতিক বিপর্যয়, মহামারিতে বিদ্ধ। কাজের জন্য ভিন রাজ্যে পাড়ি দিচ্ছেন বহু মানুষ। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে এলাকার মানুষকে বিকল্প কর্মসংস্থানের পথ করে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সংস্থাকে অশেষ ধন্যবাদ।

Suman Saha

Published by:Soumabrata Ghosh

First published:

Tags: South 24 Parganas, Sundarbans

বার্তা সূত্র