ভারতে কভিড ১৯ এর টীকাদান কর্মসূচী শুরু

 

ভারতে ১৬ জানুয়ারি শনিবার থেকে কভিড ১৯ এর টীকাদান কর্মসূচী শুরু হয়েছে। সম্মুখসারির কর্মীরা সবার আগে এই টীকা পাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জাতির উদ্দেশ্যে টেলিভিশনে ভাষণ দেওয়ার পর এই কর্মসূচী শুরু হয়। মোদি বলেন, “আমরা বিশ্বের বৃহত্তম টীকাদান অভিযান শুরু করেছি এবং এ হচ্ছে বিশ্বের কাছে আমাদের সক্ষমতার প্রমাণ”।

জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী চীনের ঊহানে সর্বপ্রথম করোনাভাইরাস সনাক্ত হবার এই এক বছর পর গতকাল বিশ্বব্যাপী কভিড ১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে কুড়ি লক্ষ। গতকাল জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুয়েটেরস সংবাদদাতাদের বলেন, “এই সাংঘাতিক সংখ্যার পেছনে রয়েছে বহু নাম ও চেহারা, যাদের হাসি এখন কেবলই স্মৃতি, খাবার টেবিলে তাদের আসনগুলো এখন শূণ্য, ঘরগুলো এখন কেবল প্রিয়জনদের নীরবতার প্রতিধ্বনি”। গুয়েটেরেস আরও বলেন, “বিশ্বব্যাপী সমন্বিত প্রচেষ্টার অভাবে মৃত্যুর সংখ্যা এত বেড়ে গেছে । বিজ্ঞান সফল হয়েছে কিন্তু একাত্মবোধ জাগেনি”।

যুক্তরাষ্ট্র এখনও কভিড ১৯ এ সংক্রমণ এবং মৃত্যু সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে। জন্স হপকিন্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে কভিড ১৯ এ সংক্রমিত হয়েছেন এ পর্যন্ত মোট দু কোটি তিরিশ লক্ষ লোক আর মৃত্যুর সংখ্যা চার লক্ষের কাছাকাছি। কোন কোন অঙ্গরাজ্য টীকাদানের এতো অনুরোধ পাচ্ছে যে, তারা তাতে সাড়া দিতে পারছে না। চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে টীকার ঘাটতি পড়েছে।

নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রে কভিড ১৯ টীকা প্রদান তরান্বিত করার পরিকল্পনা তুলে ধরেছেন। যার মধ্যে রয়েছে বর্ধিত অর্থায়ন, হাজার হাজার টীকাদান কেন্দ্র স্থাপন এবং প্রতিরক্ষা উৎপাদন আইনের অধীনে টীকা উৎপাদন ও সরবরাহ সম্প্রসারিত করা।

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email