পশ্চিমবঙ্গে কয়লার দুর্নীতি: অভিষেক ব্যানার্জীর স্ত্রী কে নোটিস, শ্যালিকার বাড়িতে সিবিআই

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে কয়লার দুর্নীতি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআই রবিবার তৃণমূল নেতা অভিষেক ব্যানার্জীর স্ত্রী রুজিরা ব্যানার্জিকে নোটিস পাঠিয়েছিল। সোমবার রুজিরা ব্যানার্জি সেই নোটিসের উত্তরে জানিয়েছেন, “আমি জানি না কেন আমাকে ডাকা হচ্ছে, তবে মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারি বেলা এগারোটা থেকে তিনটের মধ্যে সিবিআই অফিসাররা আমার বাড়িতে আসতে পারেন।”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ভাইপো অভিষেক বলেছেন, বিজেপি প্রতিহিংসার রাজনীতি করছে। একই অভিযোগ স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও।

বিজেপির একটা বড় অভিযোগ, তৃণমূল দলের নেতারা নানান ব্যবসা ও শিল্প থেকে তোলা আদায় করেন এবং দুর্নীতিতে জড়িত লোকদের কাছ থেকে ঘুষ নেন। অভিষেক ব্যানার্জিকে বিজেপি ‘কয়লা চোর’ বলেও অপবাদ দিয়েছে।

সিবিআই সূত্রের খবর, তৃণমূল যুব শাখার সম্পাদক বিনয় মিশ্র, যাঁকে এখন কেন্দ্রীয় পুলিশ খুঁজছে, তাঁর মাধ্যমেই কয়লা মাফিয়াদের কাছ থেকে প্রচুর টাকা পেয়েছেন অভিষেক, যিনি নিজে যুব শাখার সভাপতি। এ ব্যাপারে অভিষেকের স্ত্রী ও শ্যালিকাও জড়িত আছেন বলে অভিযোগ তুলেছে সিবিআই। কারণ বিনয় মিশ্রের পাঠানো টাকা এই দু’জনের অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে। সেই জন্যই তাঁদের জেরা করতে চায় বলে জানিয়েছে সিবিআই। এরই মধ্যে আজ সোমবার সিবিআইয়ের একটি দল অভিষেকের শ্যালিকা মেনকা গম্ভীরকে জেরা করার জন্য তাঁর বাড়িতে যান। ঘন্টা তিনেক তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের পর সিবিআই অফিসাররা চলে যান।

রুজিরা ব্যানার্জি

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে রুজিরা বিদেশ থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে নামার পরে তাঁর স্যুটকেসে কী আছে শুল্ক অধিকর্তারা দেখতে চান। কিন্তু রুজিরা স্যুটকেস খুলে দেখাতে রাজি হননি। শুল্ক দফতরের অফিসারদের অভিযোগ ছিল, স্যুটকেসে বেআইনি ভাবে সোনা পাচার করছেন রুজিরা। এই সময় কলকাতা পুলিশের একটি দল বিমানবন্দরে গিয়ে রুজিরাকে শুল্ক অফিসারদের হাত থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দেন। এই নিয়ে অভিযোগ আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছিল। কয়লা মাফিয়াদের সঙ্গে অভিষেক ব্যানার্জির যোগাযোগের বিষয়ে সিবিআইয়ের তদন্তে ওই ঘটনাটিও গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে।

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email