Skip to content

পড়া না পারায় সংখ্যালঘু সহপাঠীকে চড় মারার নিদান! ধৃত শিক্ষক

পড়া না পারায় সংখ্যালঘু সহপাঠীকে চড় মারার নিদান! ধৃত শিক্ষক
ফের খবরের শিরোনামে উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগর। স্কুলের এক শিক্ষক এবার সংখ্যালঘু ছাত্রকে সহপাঠী হিন্দু পড়ুয়াকে চড় মারার নিদানকে ঘিরে পড়ে গেছে শোরগোল। অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে যোগী রাজ্যের পুলিশ। জানা গেছে, ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৬ সেপ্টেম্বর। পঞ্চম শ্রেণির ওই হিন্দু ছাত্রকে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেছিলেন ওই শিক্ষক। কিন্তু পড়ুয়া তার উত্তর দিতে ব্যর্থ হয়। এতে ক্ষেপে যায় শিক্ষক।

সঙ্গে সঙ্গে ক্লাসেরই এক সংখ্যালঘু ছাত্রকে ওই পুড়য়াকে চড় মারার জন্য শিক্ষক নির্দেশ দেন বলে অভিযোগ। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পর থেকে ভুক্তভোগী ওই পড়ুয়া অবসাদে ভুগতে থাকে। বাড়িতে নিজেকে বন্দি করে রেখেছিল। ঘটনাটি নজরে আসে পড়ুয়ার বাবার। ঘরবন্দি থাকার কারণ জিজ্ঞাসা করা হলে, পড়ুয়া পুরো ঘটনাটি বিস্তারিত জানায় পরিবারকে। এরপরেই মুজাফফরনগর থানায় স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন পড়ুয়ার বাবা।

Supreme Court News : বিবেকে আঘাত লাগা উচিত! উত্তরপ্রদেশে মুসলিম ছাত্রকে চড় মারার ঘটনায় ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট
সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ২৮ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। সেই সঙ্গে স্কুল থেকেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগরের স্কুলের এই ঘটনা এই প্রথম নয়। অনুরূপ একটি ঘটনা ঘটেছিল গত অগস্ট মাসে। একটি বেসরকারি স্কুলে এক সংখ্যালঘু ছাত্রকে চড় মারার জন্য সহপাঠী পড়ুয়াদের নির্দেশ দিতে দেখা গিয়েছিল স্কুলেরই এক শিক্ষিকাকে।

Crime News : গাড়ি পার্ক করার সময় চোখে হেডলাইটের আলো, পুলিশের ১ চড়েই প্রাণ গেল ব্যক্তির
ক্লাসে পড়া না পারার জন্য ওই নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বলে শিক্ষিকা জানিয়েছিলেন। ঘটনার একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় হয়েছিল ভাইরাল। তাতে দেখায় যায় সংখ্যালঘু ওই পড়ুয়াকে চড় মারার নির্দেশ দিচ্ছেন অভিযুক্ত শিক্ষিকা। ভুক্তভোগী পড়ুয়াকে দেখা গেছে সহপাঠীদের দ্বারা চড় মারার সময় কান্নারত অবস্থায় শিক্ষিকার দিকে তাকিয়ে থাকতে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োটি দেখে সরব হন রাজনীতিবিদরাও। অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য দাবি তোলা হয়। যোগী রাজ্যের স্কুলগুলিতে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে বলেও করা হয় অভিযোগ। যদিও ঘটনার জন্য সেই সময় সাফাই দিতে ভোলেননি ওই শিক্ষিকা। মারার পিছনে ধর্মীয়গত কোনও কারণ নেই বলে দাবি করেছিলেন।

Uttar Pradesh Crime : তিন বছরের জেল হতে পারে ছাত্রকে থাপ্পড়ের নির্দেশ দেওয়া শিক্ষিকার
পড়া না পারার জন্য ওই শাস্তি দেওয়া হয় বলে জানান তিনি। যদিও পরে অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল পুলিশের পক্ষ থেকে। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে মুজাফফরনগরের একটি স্কুলে হিন্দু পড়ুয়াকে সংখ্যালঘু ছাত্রের দ্বারা চড় মারার নির্দেশের অভিযোগ উঠল শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

ফলো করুন এই সময় ডিজিটাল হোয়াটস আ্যপ চ্যানেল https://whatsapp.com/channel/0029Va9zh58Gk1Fko2WtDl1A

বার্তা সূত্র