Skip to content

ঢাকা মহানগরী উত্তরে বিভিন্ন স্পটে জামায়াতের অবরোধ, আটক ৬

সরকারের পদত্যাগ, নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ ও জামায়াত আমির ডা. শফিকুর রহমানসহ জাতীয় নেতাদের অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত দেশব্যাপী টানা ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তরের বিভিন্ন স্পটে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে দলটির নেতাকর্মীরা। এসময় কাফরুলে ৪ জন, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলে ১ জন এবং বাড্ডায় ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার সকালে ঢাকা মহানগরী উত্তরের মিরপুর অঞ্চল আয়োজিত এক বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী পথসভায় কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারী সেক্রেটারি মাহফুজুর রহমান বলেছেন, ‘সরকার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের গণদাবি পাশ কাটিয়ে একতরফা নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। কিন্তু রাজপথের সংগ্রামী জনতা তাদের সে ষড়যন্ত্র সফল হতে দেবে না। বরং গণবিরোধী তফসিল জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হলে তা জনগণ জীবন দিয়ে হলেও রুখে দেবে।’

তিনি সরকারকে জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা না করে অবিলম্বে পদত্যাগ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের আহ্বান জানান। অন্যথায় পালানোর পথ থাকবে না হুঁশিয়ার করেন।।

পরে বিক্ষোভ মিছিলটি মিরপুর-১ নং ছাপাখানা মোড় থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আনসার ক্যম্পের সামনে এসে পথসভার মাধ্যমে শেষ হয়।

পথসভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিসে শূরা সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ, আব্দুর রকীব, জসিম উদ্দীন, আল আমিন ও বিপ্লব, ছাত্রনেতা তানভির, ফাহাদ ও মেহেদীসহ জামায়াত-শিবিরের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘সরকারের মন্ত্রীরা দেশকে জান্নাতের সঙ্গে তুলনা করলেও মূলত দেশকে প্রকারান্তরে জাহান্নামে পরিণত করা হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের একজন বিচারপতিও এমন মন্তব্য করে দেশের বাস্তবচিত্র দেশ ও জাতির সামনে উপস্থাপন করেছেন। দেশ চলছে ফ্যাসীবাদী ও মাফিয়াতান্ত্রিক কায়দায়। সরকারের নিজেদের অবৈধ ক্ষমতা দীর্ঘায়িত করার জন্যই রাষ্ট্রযন্ত্রের সব কিছুকেই দলীয়করণ করে ফেলেছে। জনগণের শেষ ভরসাস্থল বিচারবিভাগকে আজ্ঞাবাহী প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হয়েছে। রাজপথে সভা-সমাবেশ ও রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন দেশের প্রত্যেক নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার হলেও সরকার সে অধিকার থেকে জনগণকে বঞ্চিত করছে। সরকার জনতার আন্দোলন নির্মম ও নিষ্ঠুরভাবে দমনের জন্য জনপ্রশাসন ও পুলিশসহ দলীয় পশুশক্তিকে লেলিয়ে দিয়ে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস অব্যাহত রেখেছে। কিন্তু এসব করে বাকশালি সরকারের শেষ রক্ষা হবে না।’

তিনি সরকারকে গণবিরোধিতা পরিহার করে গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় ফিরে আসার আহ্বান জানান। ‘অন্যথায় তাদের জন্য নির্মম পরিণতি অপেক্ষা করছে’ বলে মন্তব্য করেন।

পঞ্চম দফায় ৪৮ ঘণ্টার সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচির ১ম দিনে কাফরুলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা মহানগরী উত্তরের কাফরুল অঞ্চলের নেতাকর্মীরা। সকালে কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সহকারী সেক্রেটারি ডা. ফখরুদ্দীন মানিকের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য টুটুল, জোন টিমের সদস্য আলাউদ্দিন মোল্লা, শ্রমিক নেতা মিজানুর রহমান, মহানগর উত্তরের শূরা সদস্য আব্দুল মতিন খান, আবু তৈয়ব, আহসান হাবীব ও আতিক হাসান প্রমুখ।

আব্দুল্লাহপুর বেড়িবাঁধ সড়কে কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য মুহাম্মদ জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়। এ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিসে শূরা সদস্য এম আলম, আব্দুল্লাহ সাদিক, এম রহমান ও আবু মুসআব এবং ছাত্রনেতা জুলকারনাইন প্রমুখ।

রাজধানীর উত্তরায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াতে ইসলামী উত্তরা অঞ্চল। এতে নেতৃত্ব দেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য মো. আবু ফারহান। উপস্থিত ছিলেন উত্তরা ও তুরাগের আমির, নায়েবে আমীর ও সেক্রেটারিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিসে শূরা সদস্য মাওলানা কুতুবউদ্দীন ও আব্দুস সবুর ফরহাদের নেতৃত্বে বাড্ডা-রামপুরা অঞ্চলের বাড্ডা এলাকায় শান্তিপূর্ণ সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করা হয়। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চলাকালে স্থানীয় যুবলীগ-ছাত্রলীগ অতর্কিত হামলা চালিয়ে ৫-৬ জনকে আহত করে এবং কয়েকজনকে তুলে নিয়ে যায়। পুলিশ ১ জন গ্রেপ্তার করেছে।

(ঢাকা টাইমস/১৫নভেম্বর/জেবি/এফএ)



বার্তা সূত্র

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ সংবাদ