Skip to content

ঢাকার নিউ সুপার মার্কেটে আগুন, ৯ দমকল কর্মীসহ অসুস্থ ২৩ জন

ঢাকার নিউ সুপার মার্কেটে আগুন, ৯ দমকল কর্মীসহ অসুস্থ ২৩ জন

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার বঙ্গবাজারের অগ্নিকাণ্ডের রেশ কাটার আগেই, আগুন লাগলো নিউমার্কেট সংলগ্ন ঢাকা নিউ সুপার মার্কেটে।শনিবার (১৫ এপ্রিল) ভোর ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের চার ঘন্টার চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রেণে আসে। আগুন নেভানোর সময় ২৩ জন অসুস্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সূত্র। আহতদের মধ্যে ৯জন ফায়ার সার্ভিস কর্মী রয়েছেন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের উপ-সহকারী পরিচালক শাহজাহান সিকদার জানান, “আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ২৮টি ইউনিট কাজ করেছে। আর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে সকাল ৯টা ১০ মিনিটের দিকে।”

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে, ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা, আশপাশের এলাকার পরিস্থিতি ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ১২ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়। এদিকে, আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) জানিয়েছে, আগুন নিয়ন্ত্রণে যোগ দেয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর অগ্নি-নির্বাপনী সাহায্যকারী দল।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানিয়েছে, আগুনের ধোঁয়াসহ নানাভাবে আহত ও অসুস্থ হয়েছেন ১৮ জন। অন্য একটি সূত্র অসুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা ২৩ বলে জানিয়েছে। এদের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের সদস্য ৯ জন। আহতদের মধ্যে ১৮ জন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

দমকল কর্মী ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, পুরো মার্কেটটিতে কাপড়ের দোকান। তৃতীয় ও দ্বিতীয় তলার কাপড়ে আগুন ধরায় প্রচুর ধোঁয়া হয়। এ কারণে ভেতরে ঢুকে কাজ করা অসম্ভব হয় উঠে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, অরক্ষিত বৈদ্যুতিক লাইন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে। আর মার্কেটে অগ্নিনির্বাপণের ভালো ব্যবস্থা ছিলো না। সব মিলিয়ে আগুনকে প্রাথমিক অবস্থায় নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থা ছিলো না বলে অভিযোগ করেন তারা।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন একের পর এক আগুন লাগার ঘটনার পেছনে কোনো নাশকতা রয়েছে কি না তা গোয়েন্দা সংস্থাকে খতিয়ে দেখার অনুরোধ জানিয়েছেন। শনিবার (১৫ এপ্রিল) সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “আমরা আপনাদের জন্য ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি। একের পর এক ঘটনা ঘটছে। আমি গোয়েন্দা সংস্থাকে আহ্বান করব কোনো নাশকতা রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য।” তিনি বলেন, “নিউমার্কেটের তিন তলায় আগুন লেগেছে। ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, ঢাকা ওয়াসার পানিবাহিত গাড়িসহ বিজিবির সদস্যরা কাজ করছে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য।”

তিনি আরো বলেন, “এখানে আগুন কেন লেগেছে তা আমরা এখনও জানি না। আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছি কিন্তু নির্বাপণ করতে পারিনি।” জনসমাগমের জন্য আগুন নিয়ন্ত্রণে বেগ পেতে হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বলেন, “আমাদের প্রতিটি স্তরে যদি সবাই সচেতন থাকে তাহলে আগুন থেকে বেঁচে থাকা সম্ভব। এখানে উচ্চ ভোল্টের বাতি ব্যবহার করা হয়। সচেতন না হওয়ায় দুর্ঘটনা ঘটছে। আমরা সকল মার্কেটের দোকান মালিককে আহবান জানাই তারা যেন উচ্চ ভোল্টের বাতি ব্যবহার থেকে বিরত থাকেন।”

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা