Skip to content

জনসংখ্যায় বিশ্বে এখন শীর্ষে ভারত, ছাপিয়ে গেল চীনকে

জনসংখ্যায় বিশ্বে এখন শীর্ষে ভারত, ছাপিয়ে গেল চীনকে

জনসংখ্যার নিরিখে বিশ্বের এক নম্বরে উঠে এল ভারত। এক সময়ে বিশ্বের জনসংখ্যায় শীর্ষে থাকা চীনকে পেরিয়ে গেল ভারত।

ইউনাইটেড নেশনস পপুলেশন ফান্ড (ইউএনপিএফ) জানাচ্ছে, বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যা এখন ভারতেই। চীনের থেকে ভারতের জনসংখ্যা অন্তত ২৯ লাখ বেশি। রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতে এখন জনসংখ্যা ১৪২.৮ কোটি, চীনে ১৪২.৫ কোটি।

২০২১ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতের জনসংখ্যা ১৪০ কোটি, আর চীনের জনসংখ্যা ১৪১.২৪ কোটি। বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১৯ শতাংশের বাস ছিল চীনে এবং ১৮ শতাংশের ভারতে। কিন্তু এখন এই সমীকরণ বদলে গেছে। বিশেষজ্ঞরা আরও পূর্বাভাস দিয়েছেন, অন্তত ১৫০ কোটি জনসংখ্যা দাঁড়াবে ভারতের। চীন থাকবে দ্বিতীয় স্থানে, ১১০ কোটির কিছু কম।

গোটা বিশ্বের জনসংখ্যা পেরোতে চলেছে ৮০০ কোটির গণ্ডি। ২০৩০ সালে তা ৮৫০ কোটি, ২০৫০-এ ৯৭০ কোটি এবং ২১০০ সালে বিশ্বের সম্ভাব্য জনসংখ্যা হতে চলেছে ১০৪০ কোটিরও বেশি। সেখানে জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি অবদান থাকবে ভারতেরই। ২০৫০ সালের মধ্যে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হারের যে পূর্বাভাস করা হয়েছে, তার অধিকাংশই দেখা যাবে আটটি দেশে। যার মধ্যে রয়েছে ভারত, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, মিশর, ইথিয়োপিয়া, নাইজিরিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপিন্স, তানজ়ানিয়া।

২০২২ সালে বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দুই অঞ্চল হল পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া। এই দুই অঞ্চলের মধ্যেই পড়ছে ভারত এবং চীন। পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বর্তমানে জনসংখ্যা ২৩০ কোটি (বিশ্বের ২৯ শতাংশ)। অন্য দিকে মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়ায় ২১০ কোটি জনসংখ্যা (বিশ্বের নিরিখে ২৬ শতাংশ)। রিপোর্ট বলছে, ২০৩৭ সালের ভিতরে মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল অঞ্চলের তকমা পেতে চলেছে। কারণ ২০৩০ সাল নাগাদ পুর্ব ও দক্ষিণ-পুর্ব এশিয়ায় জনসংখ্যা ক্রমশ কমতে শুরু করবে

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা