ছাত্র ছাত্রীদের জন্য অভিনব ভাবনা রাজ্য সরকারের, শুরু হতে চলেছে বিশেষ ধরনের ক্লাস

ছাত্র ছাত্রীদের জন্য অভিনব ভাবনা রাজ্য সরকারের, শুরু হতে চলেছে বিশেষ ধরনের ক্লাস

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ করোনার জেরে ইতিমধ্যেই বাতিল করতে হয়েছে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। স্কুল বন্ধ গত বছর থেকেই। কিছু এলাকায় মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হলেও বেশিরভাগ এলাকাতেই এই মুহূর্তে পড়াশোনা প্রায় বন্ধ ছাত্র-ছাত্রীদের। বিশেষত প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলগুলিতে অনেকেরই স্মার্ট ফোন নেই। তার জেরে রীতিমতো ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে পড়াশোনা। এমনকি তীব্র অবসাদের জেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে অনেকেই। পরীক্ষা এই মুহূর্তে না নেওয়া হলেও ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা বজায় রাখতে ফের একবার দূরশিক্ষা পদ্ধতির আশ্রয় নিল রাজ্য সরকার।

গতবছরও দূরশিক্ষা পদ্ধতির মাধ্যমে টিভি স্টুডিওতে শিক্ষকদের ডেকে ক্লাসের ব্যবস্থা করেছিল রাজ্য সরকার। যার জেরে উপকৃত হয়েছিল অনেক ছাত্র-ছাত্রীই। এবারও ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা বজায় রাখতে টিভির মাধ্যমে ক্লাস আয়োজন করার চিন্তাভাবনা করছে সরকার। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে প্রাথমিক স্তরের আলোচনা। শিক্ষা দপ্তরের সকলের মতামত পেলেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পূর্ণ প্রস্তাব পাঠানো হবে। যদিও কোন কোন শ্রেণির পঠন-পাঠনের ওপর জোর দেওয়া হবে তা এখনো জানানো হয়নি। জানা গিয়েছে, শেষ সিদ্ধান্ত নেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই।

গত বছরেও নবম, দশম, একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীর ক্লাসের উপর জোর দেওয়া হয়েছিল শিক্ষা দপ্তর তরফে। তাই ধারণা অনুযায়ী এ বছরেও একইভাবে এই চারটি শ্রেণীর পঠন-পাঠনের উপরেই বিশেষ গুরুত্ব দিতে চলেছে তারা। করোনার প্রভাব কিছুটা কমলেও এখনই ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্কুল খুলে দেওয়া ঝুঁকিপূর্ণ কাজ হতে পারে। সেই কথা মাথায় রেখেই গতবছরের মত টিভির মাধ্যমে শিক্ষা পদ্ধতিকেই ফের একবার আশ্রয় করতে চলেছে রাজ্য সরকার।

যদিও এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত এখনো সামনে আসেনি। তবে রাজ্য সরকার চাইছে গত বছরের মতো এ বছরও ছাত্র-ছাত্রীদের সিলেবাস কিছুটা এগিয়ে রাখতে। সেই অর্থে দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এবার ক্লাস নেওয়া হয়নি। আর তাই পরবর্তী ক্ষেত্রে তাদের যাতে অসুবিধা না হয়, সেই কারণেই এই সিদ্ধান্তের দিকে অগ্রসর হচ্ছে রাজ্য। গত বছর প্রায় চার মাস টিভির মাধ্যমে ক্লাস হয়েছিল ছাত্র-ছাত্রীদের। স্টুডিওতে এসে, তাদের সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করেছিলেন বহু শিক্ষক। আর তাই গতবছরের মত একইভাবে ফের একফবার ছাত্রছাত্রীদের কাছে শিক্ষাব্যবস্থাকে পৌছে দেবার চেষ্টা করতে চাইছে শিক্ষা দপ্তর।

সংবাদ সূত্র

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email