Skip to content

”গান সরাসরি হৃদয়ে ছুঁয়ে যায়”, কিশোর কণ্ঠে আজও মুগ্ধ সচিন

''গান সরাসরি হৃদয়ে ছুঁয়ে যায়'', কিশোর কণ্ঠে আজও মুগ্ধ সচিন

মুম্বই: তিনি কিংবদন্তি। তিনি ভারতীয় সঙ্গীতের অন্যতম সেরা গায়ক ও সুরকার। তিনি প্রয়াত হয়েছেন বহু বছর হয়ে গেল। যুগ বদলেছে, কিন্তু কিশোর কুমার (Kishore Kumar) আজও প্রত্যেক ভারতীয় সঙ্গীতপ্রেমী মানুষের মনে রয়ে গিয়েছেন। আজ তাঁর জন্মদিনে (Happy Birthday) এবার কিশোর কণ্ঠে স্মৃতিচারণায় ডুব দিলেন আরেক কিংবদন্তি সচিন তেন্ডুলকর (Sachin Tendulkar)। মাস্টার ব্লাস্টার যে কিশোর প্রেমী, তা কারও জানতে বাকি নেই। নিজের সোশ্য়াল মিডিয়ায় সচিন একটি ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করেছেন। সেখানে তাঁকে বলতে শোনা যাচ্ছে, ”আজ কিশোরদার জন্মদিন। এই দিনে আমি এমন একটি গান চালাব যা সবার মন জিতে নিয়েছিল।” নিজের পােস্ট মাস্টার ব্লাস্টার লিখেছেন, ”কিশোর কুমারের গান সরাসরি হৃদয়ে ছুঁয়ে যায়।” সচিন তাঁর মোবাইলে কিশোর কুমারের গাওয়া বিখ্যাত গান ‘আনে ওয়ালা কাল, জানে ওয়ালা হে…’ চালিয়েছিলেন।

 

তাঁর গান মন ছুঁয়েছে হাজার হাজার মানুষের। লতা মঙ্গেশকরকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কিশোর কুমার বলেছিলেন, ‘আমি গানকে সবসময় অভিনয়ের আগে প্রাধান্য দিই। কারণ, গান মন থেকে আসে। আর যা মন থেকে আসে, সেটাই মন ছুঁয়ে যায় মানুষের। তবে অভিনয় অর্থাৎ গোটা বিষয়টাই মিথ্যে। আমি সেই কারণে অভিনয় করতে চাইনি। তবে দাদা আমায় অভিনয়ে নিয়ে আসেন। আমি মানসিকভাবে সবসময় গানকেই অভিনয়ের থেকে বেশি প্রাধান্য দিই, দেবও।’

কিংবদন্তী এই সঙ্গীতশিল্পী জন্মগ্রহণ করেন ৪ অগাস্ট, ১৯২৯ সালে, মধ্যপ্রদেশের খণ্ডওয়ায়। বাঙালি বাড়িতে জন্ম। কর্মজীবন শুরু করে দাদা অশোক কুমারের মতোই অভিনেতা হিসেবে। ১৯৪৬ সালে তাঁর প্রথম ছবি ‘শিকারি’ মুক্তি পায়। শুরু করলেও বিশেষ মন মজেনি অভিনয়ে। এরপরেও কিছু ছবিতে কাজ করলেও ১৯৪৮ সালে ‘জিদ্দি’ ছবির হাত ধরে প্রথম সঙ্গীত জগতের পথচলা শুরু। এরপর ধীরে ধীরে গায়ক (Singer), গীতিকার (Lyricist), সঙ্গীত পরিচালক (Music Director) হিসেবেই কেরিয়ারে এগিয়ে চলেন তিনি। গান তৈরি করেছেন ও গেয়েছেন হিন্দি, বাংলা, তামিল প্রভৃতি ভাষায়। এছাড়াও একাধিক আঞ্চলিক ভাষা তিনি শিখেছিলেন যেমন মরাঠি, গুজরাতি, অসমীয়া, মালয়লম, ওড়িয়া ও কন্নড়। 



বার্তা সূত্র