Skip to content

‘খ্রিষ্টান ছাড়া আর কেউ পালন করবে না বড়দিন’, অসমে নতুন ফতোয়া বজরং দলের – এই মুহূর্তে

Published by:

Srabanti Ghosh


26th December 2021 3:32 pm

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ ‘বড়দিন খ্রিষ্টানদের উৎসব। তাই খ্রিষ্ট ধর্মের মানুষ ছাড়া আর কেউ বড়দিনের উৎসব পালন করতে পারবে না। হিন্দুরা কেন অংশ নেবে বড় দিনের উৎসবে?’ গুরুগ্রামের পর এবার অসমেও খ্রিষ্টানদের বড়দিনের উৎসবে হামলা বজরং দলের। জানা যাচ্ছে, শনিবার ২৫ ডিসেম্বর অসমের শিলচরের একটি গির্জায় চলছিল বড়দিনের উৎসব। কিন্তু সেই উৎসবেই হামলা চালিয়েছে বিজেপি ঘনিষ্ঠ দক্ষিণপন্থী সংগঠন বজরং দল। ইতিমধ্যেই সেই হামলার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর সেখানেই এই দলের সমর্থকদের হিন্দুদের উদ্দেশ্যে এই বার্তা দিতে দেখা গিয়েছে।  

ওই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, বজরং দলের সমর্থকরা শিলচরের ওই গির্জায় ঢুকে অবিলম্বে অনুষ্ঠান বন্ধ করতে বলে। কারণ তাদের দাবি, বড়দিন খ্রিষ্টানদের উৎসব। তারা এই উৎসব পালন করুন তাতে কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু হিন্দুরা ওই উৎসবে যোগ দিতে পারবেন না। কারণ ২৫ ডিসেম্বর ‘তুলসী দিবস’। আর তাই ওইদিন হিন্দুরা তাঁদের নিজেদের উৎসবে যোগ না দিয়ে বড়দিনের উৎসবে যোগ দিলে সেটা কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। ওই ভিডিওতেই একজনকে বলতে শোনা যায়, ‘আমরা খ্রিষ্টানদের উৎসবের বিরুদ্ধে নৈ। কিন্তু ওই উৎসবে যদি কোনও হিন্দু ছেলে মেয়ে যোগ দেয় তাহলে আমরা অবশ্যই আপত্তি করব।’

অন্যদিকে শিলচর পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এখনও পর্যন্ত কেউ এই ঘটনা সম্পর্কে পুলিশকে কিছু জানায়নি বা এফআইআর করেনি। তবে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিও বলছে ভিন্ন কথা। ওই ভিডিওতেই দেখা গিয়েছে বজরং দলের সদস্যরা যখন ওই গির্জায় হামলা চালিয়েছে তখন আশেপাশেই বেশ কয়েকজন পুলিশ ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। অর্থাৎ যা হয়েছে পুলিশের চোখের সামনেই হয়েছে বলে অভিযোগ। কিন্তু এই ব্যাপারে স্বাভাবিকভাবেই মুখ খোলেননি পুলিশ আধিকারিকদের কেউই। 

তবে শিলচরে এই ধরণের ঘটনা এই যে প্রথম ঘটল তা কিন্তু নয়। জানা যাচ্ছে গত বছরও ঠিক বড়দিনের আগেই শিলচরের এক বিজেপি মন্তব্য করেছিলেন, ‘বড়দিনের উৎসবে যদি কোনও হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষ অংশ নেয় তাহলে তাঁকে প্রকাশ্য রাস্তায় মারা হবে।’ সেই বিতর্কের জলও অনেক দূর গড়িয়েছিল। অন্যদিকে শনিবার অর্থাৎ বড়দিনের দিনও গুরুগ্রামের একটি খ্রিষ্টান স্কুলে বড়দিনের উৎসব চলাকালীন হামলা চালানো হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় প্রার্থনা। ক্যারল গায়কের কাছ থেকে মাইক কেড়ে নিয়ে তাঁকে ধাক্কা অবধি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।  

More News:

বার্তা সূত্র