Skip to content

খুলে দেওয়া হলো চবির শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল

খুলে দেওয়া হলো চবির শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৮ আগস্ট) সকালে চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার নারী শিক্ষার্থীদের এই হল আনুষ্ঠানিকভাবে চালুর কথা ঘোষণা দেন।

নারী শিক্ষার্থীদের জন্য হলটি বঙ্গমাতার শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের স্মরণে নির্মিত হয়েছে। তবে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার ২৩ মাস পরে হলটি খুলে দেওয়া হয়েছে।

৮ আগস্ট বঙ্গমাতার ৯৩তম জন্মদিন উপলক্ষে এই হলের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হয় হলের উদ্বোধনের পরে বঙ্গমাতার স্মরণে  একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. উদিতি দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূখ্য আলোচক হিসেবে ছিলেন চবির পালি বিভাগের অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু।

সভায় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য, চবি রেজিস্ট্রার, প্রক্টরিয়াল বডি, শিক্ষক সমিতির সদস্যবৃন্দ, প্রধান হিসাবনিয়ামক। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের সিনিয়র হাউজ টিউটরবৃন্দ।

ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন এন্ড রিসার্চ এর সহকারী অধ্যাপক নাসিমা পারভীনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। তিনি বলেন, আমাদের মেয়েরা বিভিন্ন হলে আছে। 

এরা খুব কষ্ট করছে। একজনের জায়গায় এক হাজার শিক্ষার্থী হলে থাকছে। শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল লোকবলের কারণে চালু করা যায়নি। অনেক চেষ্টা করেও চালু করতে পারিনি। এবার আমার চেষ্টা করেছি হল চালুর জন্য।

তিনি আরও বলেন, এই হলের প্রভোস্ট বাদে সবকিছু ধার করা হয়েছে। আজ আমরা এই মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিনে এই হল চালুর উদ্যোগ নিয়েছি। এই হলে বৌদ্ধ ধর্মের শিক্ষার্থীদেরকে ৬০ শতাংশ আসন বরাদ্দ দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে পালি বিভাগের অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বৌদ্ধ শিক্ষার্থীদের জন্য হল নির্মাণের চেষ্টা চালিয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে সেটা সম্ভব হয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. উদিতি দাশ বলেন, আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী। আমরা এই শান্তি নিয়েই সর্বদা থাকতে চাই। এই হলে সকল আবাসিক শিক্ষার্থী যেন ভালোভাবে থাকতে পারে সেটার জন্য কাজ করবো আমি। আমার ওপর যে গুরু দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সেটা ভালোভাবে পালন করার চেষ্টা করব। 

এইচআর



বার্তা সূত্র