Skip to content

খালেদা জিয়ার অবস্থা অপরিবর্তিত

খালেদা জিয়ার অবস্থা অপরিবর্তিত

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন। সোমবার রাতে গণমাধ্যমকে তিনি এ কথা জানান।

এভারকেয়ার হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা দিন দিন অনিশ্চয়তার দিকেই যাচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেগম খালেদা জিয়ার দ্রুত উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। যা আমাদের দেশে সম্ভব নয়।

জাহিদ হোসেন বলেন, মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা বার বার তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছেন এবং তারা তাদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দিচ্ছেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার যে অবস্থা, তাকে বিদেশে নিয়ে আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা না দিলে অবস্থার উন্নতি সম্ভব নয়।

ডা. জাহিদ জানান, গত ১৩ তারিখ থেকে একমাসে ৪ বার তার বড় ধরনের রক্ত ক্ষরণ হয়েছে। ওষুধ দিলে রক্তক্ষরণ সাময়িক বন্ধ হলেও আবার শুরু হয়। এ অবস্থায় দ্রুত বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা দিতে না পারলে তাকে বাঁচানো কঠিন হবে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি সাজা হলে কারাগারে যান খালেদা জিয়া। এরপর দেশে করোনা মহামারী শুরু হলে খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনে তাকে গত বছরের ২৫ মার্চ নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। এতে শর্ত ছিল যে, তাকে দেশেই থাকতে হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন কারাগার থেকে বেরিয়ে গুলশানের বাসা ফিরোজায় ওঠেন। পরে করোনায় আক্রান্ত হলে চলতি বছরের প্রায় দুই মাস হাসাপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলেন তিনি।

পরে চার মাসের মাথায় আবার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল খালেদা জিয়া। ওই সময় ২৬ দিন হাসপাতালে কাটিয়ে বাসায় ফেরার ৫ দিন পর আবারও গত ১৩ নভেম্বর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে।

বর্তমানে হাসপাতালের সিসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসনকে। তিনি ডায়াবেটিস, আর্থ্রাইটিস, ফুসফুস, কিডনি এবং চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন।

এছাড়া বেগম খালেদা জিয়া লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত বলেও জানিয়েছেন তার চিকিৎসার জন্য গঠিত হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড।

বাংলাদেশ জার্নাল/কেএস/আরকে



বার্তা সূত্র