Skip to content

‘খারাপ খেলে দল থেকে বাদ পড়েনি’, বাংলাদেশ ক্রিকেটে স্বজনপোষণের ইঙ্গিত মাহমুদুল্লাহর স্ত্রীর

'খারাপ খেলে দল থেকে বাদ পড়েনি', বাংলাদেশ ক্রিকেটে স্বজনপোষণের ইঙ্গিত মাহমুদুল্লাহর স্ত্রীর
বাংলাদেশের এশিয়া কাপের দল থেকে বাদ পড়েছেন মাহমুদুল্লা রিয়াদ। বাংলাদেশকে একাধিক ম্যাচ জেতানো অন্যতম অভিজ্ঞ এই ব্যাটারকে এবার না খেলানোয় সমর্থকদের অনেকেই ক্ষুব্ধ। কেউই BCB-এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাননি। সোশাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সমর্থকরা। বাংলাদেশের মেধার কোনও দাম নেই বলে মন্তব্য করেন অনেকে। সমর্থকরা তাঁকে ফেরানোর দাবি জানাচ্ছেন দলে। তাঁকে দল থেকে বাদ দেওয়ার কোনও শক্তপোক্ত কারও দেখাতে পারেননি নির্বাচকরা। এবার পুরো বিষয়টা নিয়ে মুখ খুললেন তাঁর স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি।

২০১৫ সালে মাহমুদুল্লা বাংলাদেশের হয়ে বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরি করেন। একেরপর এক সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। কঠিন সময়ে যেই প্লেয়ার দলে হয়ে খেলেছেন তাঁকে সুযোগ না দেওয়ায় নিন্দা হয়েছে। এমনকি তাঁকে স্ট্যান্ডবাই প্লেয়ার হিসেবেও রাখা হয়নি।
Asia Cup 2023: সুযোগ পেলেন না মাহমদুল্লাহ, সাকিবকে সামনে রেখে এশিয়া কাপের দল ঘোষণা বাংলাদেশের
এই বিষয়ে সবার প্রথম মুখ খোলেন মুশফিকুর রহিমের স্ত্রী ও মাহমুদুল্লাহ শ্যালিকা জান্নাতুল কিফাইয়াত মন্ডি। বাংলাদেশের ১৭ সদস্যের দল ঘোষণার পর তিনি ফেসবুকে কারও নাম না করে লেখেন, ‘অবিচার এখন নতুন ট্রেন্ড।’ তিনি কারও নাম না নিলেও সেটা যে মাহমুদুল্লাহর জন্য লেখা তা বুঝতে কারও অসুবিধা হয়নি। এবার তাঁর পথেই হাঁটলেন জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি।

তিনি ফেসবুকে লেখেন, ‘বিশ্বকাপ এর প্রথম সেঞ্চুরিয়ান-এর স্ত্রী হিসেবে আমি জান্নাতুল কাওসার গর্ববোধ করি এবং আজীবন করব। তাঁকে দলের প্রয়োজনে যখন যেখানে খুশি খেলতে নামানো হত, তাও সে কখনো কোনওদিন কিছু বলেননি তাঁর স্বাচ্ছন্দ্যের পজিশন আসলে কোনটা। সেই স্যাক্রিফাইসগুলো না করলে আজকে তাঁর রানের সংখ্যা আরও অনেক বেশি হতো! সে সর্বদাই অপ্রতিবাদী ছিলেন। নিজের যোগ্যতায় সবসময় দলে জায়গা পেয়ে আসছেন। আমি এখনও গর্ববোধ করছি কারণ আমার স্বামী খারাপ খেলে দল থেকে বাদ পরেনি!’
Shakib Al Hasan: শিকে ছিঁড়ল না লিটনের, এশিয়া ও বিশ্বকাপের জন্য সাকিবকেই অধিনায়ক ঘোষণা বাংলাদেশের
তিনি স্বামীর ভালো খেলার দাবি করার পাশাপাশি তিনি মাহমুদুল্লাহকে দল থেকে বাদ দেওয়ার কারণ জানতে চান। তিনি বলেন, ‘ভালো করে পরিসংখ‍্যান অনুসন্ধান করলে দেখবেন প্রাথমিক দলে থেকে কঠোর অনুশীলন করে চেষ্টা করেছেন এবং ফিটনেস টেস্টেও ফেল করেনি। তাই যথাযথ কারণ বিশ্লেষণ করে তাঁকে বাদ দিলে উপকৃত হতাম।’

এরসঙ্গে তিনি বলেন যে বাকি অভিজ্ঞ প্লেয়াররা যেন বঞ্চিত না হন সেটা তিনি চান। বলেন, ‘আমি দোয়া করি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের মতো অভিজ্ঞ আর কোনো ক্রিকেটার যেন অবহেলার শিকার না হন, সুযোগ বঞ্চিত না হয়, সাইলেন্ট হিরো না হয়। আগামী প্রজন্মের ক্রিকেটারদের জন‍্য বিশ্রামের ট্রেন্ড বন্ধ হোক যাতে তাদের অবসরের অধিকার কেড়ে নেওয়া না হয়।’

বার্তা সূত্র