Skip to content

কালিয়াগঞ্জে মৃত কিশোরীর বাড়িতে পৌঁছলেন সুকান্ত মজুমদার, সিবিআই তদন্তের দাবি

Unusual death of girl in Kaliaganj

শনিবার মৃত কিশোরীর বাড়ি থেকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি ফিরতেই ফের উত্তেজনা ছড়ায় কালিয়াগঞ্জে৷

 

Bengal Live রায়গঞ্জ: দ্বিতীয় দিনেও থমথমে পরিবেশ কালিয়াগঞ্জে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি, রায়গঞ্জের সাংসদ মৃতার বাড়ি থেকে ফিরে যেতেই ফের উত্তেজনা ছড়ায়। রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের। ঘটনাস্থলে পুলিশের বিশাল বাহিনী। উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে এদিন কাঁদানেগ্যাসের সেল ফাটায় পুলিশ৷ পাশাপাশি মৃদু লাঠিচার্জও করে পুলিশ৷ রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সানা আখতার জানিয়েছেন, অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

শনিবার সকালেই মৃতার বাড়িতে পৌঁছান বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী সহ রাজ্য বিজেপির একাধিক নেতৃত্ব। তাঁদের উপস্থিতিতেই মৃতার দেহ সৎকার করে পরিজনেরা। এরপর সুকান্ত মজুমদার, দেবশ্রী চৌধুরী রায়গঞ্জের দিকে রওনা দিতেই ফের একবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কালিয়াগঞ্জ। দোষীদের শাস্তির দাবিতে ফের পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন গ্রামবাসীরা।

 

অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি দুর্গাপুর-কালিয়াগঞ্জ রাজ্য সড়কে

দোষীদের চূড়ান্ত শাস্তির দাবি তোলেন সুকান্ত মজুমদার। পাশাপাশি সিবিআই তদন্তের দাবি তোলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, ” শুক্রবার এক নাবালিকার মৃত্যু হয়েছে। পরিবার ও গ্রামবাসীদের অভিযোগ, নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। অনেক তথ্যপ্রমাণ লোপাট করা হয়েছে। কারণ যে জায়গায় দেহটি পাওয়া গিয়েছে, সেই জায়গাটি পুলিশ ঘিরে রাখেনি। সেখানে মদের বোতল ও দুই জোড়া জুতো পাওয়া গেছে। ওই জঙ্গলের মধ্যে দেহের পাশে একটি বিষের কৌটো পাওয়া গেছে।”

“গতকাল প্রাইমাফেসি দেখেই জেলার এসপি যা মন্তব্য করেছেন৷ তাতে এটা পরিষ্কার যে ঘটনাটিকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য যা করা দরকার, পুলিশ তাই করেছে। পুলিশ তদন্ত ঠিকমতো করেনি। নাবালিকার পরিবার সিবিআই তদন্ত চায়। আমরাও সিবিআই তদন্ত দাবি করছি। এর জন্য সিবিআই তদন্ত চেয়ে আমরা কোর্টে যাচ্ছি। মামলার যা খরচ হবে, সব ভারতীয় জনতা পার্টি বহন করবে। ”

“স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী সালিশি অর্থাৎ ঘটনাটি মিটমাট করে দেওয়ার জন্য মৃতার পরিবারকে ডেকেছে। মিটমাটের জন্য বলেছিল মানেই কিছু একটা ঘটেছে। শুধু তাই নয়, অভিযুক্ত ছেলেটি সারেণ্ডার করল কেন ? পুরো পরিকল্পনা করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে।”

Unusual death of girl in Kaliaganj
উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের লাঠিচার্জ

শুক্রবার কালিয়াগঞ্জের দ্বাদশ শ্রেণীর এক কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়। পরিজনদের অভিযোগ, ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। এই ঘটনার পর থেকেই দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান এলাকাবাসীরা৷ কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা ধারণ করে কালিয়াগঞ্জ-দুর্গাপুর রাজ্য সড়ক। ব্যাপক লাঠিচার্জ ও কাঁদানেগ্যাসের সেল ফাটিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ৷ রাতেই কালিয়াগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে মৃতার পরিজনেরা। ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ ইতিমধ্যেই দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সানা আখতার জানিয়েছেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বিষক্রিয়ার প্রমাণ মিলেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। আমরা গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করছি।

বার্তা সূত্র