Skip to content

‘কংগ্রেস পাশে আছে’, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরে আত্মঘাতী তরুনীর পরিবারকে আশ্বাস অধীরের – Prothom Kolkata

'কংগ্রেস পাশে আছে', তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জেরে আত্মঘাতী তরুনীর পরিবারকে আশ্বাস অধীরের - Prothom Kolkata

।। প্রথম কলকাতা।।

পুরভোটের ফল প্রকাশের দিন বর্ধমানের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা তুহিনা খাতুনের আত্মহত্যার ঘটনায় অভিযোগ উঠেছিল ওই ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর বসির আহমেদের বিরুদ্ধে। পরিবারের তরফ থেকে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করে। কিন্তু যার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল সেই সদ্য নির্বাচিত কাউন্সিলর বসির আহমেদের বিরুদ্ধে কোনো রকম পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ। এবার এই তরুণী তুহিনা খাতুনের মৃত্যুর ঘটনায় আসরে নামল কংগ্রেস। সোমবার রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর নেতৃত্বে কংগ্রেসের এক প্রতিনিধি দল নেতার বাড়িতে এসে উপস্থিত হন।

এদিন অধীর রঞ্জন চৌধুরীর সঙ্গে ছিলেন পূর্ব এবং পশ্চিম বর্ধমানের কংগ্রেস সভাপতি সহ অন্যান্য নেতারা। সেখানে তাঁরা পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ কথাবার্তা বলেন। ওই মৃতা তরুনীর পরিবারকে আশ্বাস দেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। তিনি বলেন,”কংগ্রেস সবসময় তাদের পাশে আছে। কোনরকম আইনি সহায়তা দরকার হলে তাঁরা অবশ্যই পাশে থাকবেন। প্রয়োজন হলে উচ্চ আদালতে যাওয়া হবে”।তিনি আরও বলেন, যেখানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা সেখানেই রাজ্যের মহিলা এবং সংখ্যালঘুদের উপর এমন আক্রমণের ঘটনা ঘটেই চলেছে। যেভাবে এই ঘটনায় একজন সংখ্যালঘু পরিবারের মেয়ের মর্যাদা নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করা হয়েছে, তাকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া হয়েছে। এমনকি মেয়েটির মৃত্যুর পরেও তার পরিবারকে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : তৃণমূল নেতার প্ররোচনায় তরুনীর আত্মহত্যা, বাম ছাত্র সংগঠনের বিক্ষোভ বর্ধমান থানায়

ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি। তিনি প্রশ্ন করেন, কীভাবে নিজেদের দলের সমর্থকেই আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হল। আর এ বিষয়ে তৃণমূলের কোন নেতৃত্ব কোনো উচ্চবাচ্য করলেন না। জানা যায় এর আগেও কংগ্রেসের রাজ্য মহিলা নেত্রী শুভ্রা দত্তের নেতৃত্বে দুটি দল তুহিনা খাতুনের বাড়িতে এসে পৌঁছেছিলেন। উল্লেখ্য, তুহিনা খাতুন বর্ধমান পৌরসভা ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাবুরবাগ মসজিদ সংলগ্ন নতুন পল্লী এলাকার বাসিন্দা। বছর আঠারোর এই তরুণী বর্ধমান রাজ কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিল। তাঁর পরিবার এবং সে নিজেও তৃণমূলের সক্রিয় সমর্থন ছিল। তবে ওই ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর সমর্থক হওয়ার জন্য প্রাণ হারাতে হল তুহিনাকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম



বার্তা সূত্র