Skip to content

আদানির সঙ্গে বিদ্যুতের চুক্তি বাতিলের দাবি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের

আদানির সঙ্গে বিদ্যুতের চুক্তি বাতিলের দাবি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের

ভারতীয় আদানি গ্রুপের সঙ্গে সরকারের বিদ্যুৎ চুক্তিকে রাষ্ট্রবিরোধী আখ্যা দিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অবিলম্বে এই চুক্তি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশের মানুষ ইতিমধ্যে আদানি গ্রুপের সঙ্গে চুক্তির একটি অনুলিপি পেয়েছে। এটি একটি চরম অসম চুক্তি। যা একটি হীন উদ্দেশ্য নিয়ে সাক্ষরিত হয়েছে”।

বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) এক গোলটেবিল আলোচনায় বক্তৃতাকালে তিনি এ কথা বলেন। অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (এইবি) রাজধানীর একটি হোটেলে “বিদ্যুত খাতে বিপর্যয়: গভীর সংকটে অর্থনীতি” শীর্ষক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে মূল বক্তব্য দেন এইবির মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার হাসিন আহমেদ।

মির্জা ফখরুল বলেন, ওয়াশিংটন পোস্ট আদানি গ্রুপের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ চুক্তির বিষয়টি প্রকাশ করায়, একটি দেশের সরকার কীভাবে এ ধরনের চুক্তি করতে পারে তা নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রশ্ন উঠেছে।

তিনি বলেন, “আদানির সঙ্গে এই চুক্তি দেশ ও জনগণের বিরোধী। আমি বলতে চাই এই চুক্তি অবিলম্বে বাতিল করা উচিত। একই সঙ্গে বিদ্যুৎ খাতের জন্য ক্ষতিপূরণ আইন প্রত্যাহার করা উচিত”।

মির্জা ফখরুল বলেন, “বাংলাদেশের জনগণের প্রতি কোনো সহানুভূতি ও দায়বদ্ধতা না থাকায় আওয়ামী লীগ সরকার আদানির সঙ্গে চুক্তি করতে পারে। বাংলাদেশের জনগণের কাছে এই সরকারের কোনো জবাবদিহিতা নেই। তারা টাকা চুরি করে বিদেশে বাড়ি তৈরি করে, ব্যবসা করে এবং আমাদের সাধারণ মানুষের পকেট কেটে বিলাসবহুল জীবনযাপন করে”।

তিনি বলেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতারাও ২০১৮ সালের নির্বাচনে তাদের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য পরবর্তী সাধারণ নির্বাচনে ব্যবহার করার জন্য জনগণের অর্থ লুটপাট করছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, “তারা (আওয়ামী লীগ) আবার টাকা দিয়ে নির্বাচনে কারচুপি করবে। তারা নির্বাচন পরিচালনার সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে টাকা দেবে… টাকা ভরা খাম প্রিজাইডিং অফিসার থেকে শুরু করে পুলিশ, বিজিবি, এমনকি যারা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে, তাদের সকল স্তরে যাবে। এটি ২০১৮ সালের মতোই সত্য”।

তিনি বলেন, তারা জানতে পেরেছেন, আগামী নির্বাচনে ভোট কারচুপির জন্য আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের ব্যবহার করতে সরকার নতুন কৌশল নিচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার বিভিন্ন কেন্দ্রের ফলাফল পরিবর্তন করে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের বিজয় নিশ্চিত করতে স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও নতুন কৌশল অবলম্বন করছে। “(মনিরুল হক) কুমিল্লার সাক্কু এদেরই একজন শিকার”।

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা