Skip to content

অমর একুশে গ্রন্থমেলার সমাপ্তি, আট প্রকাশনা সংস্থা পুরস্কৃত

অমর একুশে গ্রন্থমেলার সমাপ্তি, আট প্রকাশনা সংস্থা পুরস্কৃত

শেষ হলো অমর একুশে গ্রন্থমেলা। চলতি বছর ‘লিপ ইয়ার’ হওয়ায় ফেব্রুয়ারি মাস ছিলো ২৯ দিনে। পাশাপাশি, বইমেলা ২ দিন বাড়ানো হয়। ফলে, এই বছরের বইমেলা ছিলো ৩১ দিনের। মেলা শেষে আটটি প্রকাশনা সংস্থাকে, চারটি বিভাগে পুরস্কৃত করেছে বাংলা একাডেমি।

শনিবার(২ মার্চ) ছিলো অমর একুশে গ্রন্থমেলার শেষ দিন। বাংলা একাডেমির তথ্য মতে, এবার মেলায় মোট ৩ হাজার ৭৫১টি নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে এবং সব মিলিয়ে প্রায় ৬০ লাখ দর্শনার্থী এসেছেন।

বইমেলার মূল মঞ্চে সমাপনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মুহম্মদ নূরুল হুদা। প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমির প্রশাসন উপ-বিভাগের উপ-পরিচালক ড. সাহেদ মন্তাজ এবারের মেলার বিক্রির পরিসংখ্যান ও সার্বিক তথ্য তুলে ধরেন।

আয়োজক বাংলা একাডেমির প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবারের মেলায় বিক্রি ৬০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। আগের বছর এই অংক ছিলো ৪৭ কোটি টাকা; ২০২২ সালে ছিলো ৫২ কোটি টাকা।

মেলায় মোট ৩ হাজার ৭৫১টি বই প্রকাশিত হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলা একাডেমি। এর মধ্যে রয়েছে; কবিতার বই ১ হাজার ২৬২টি, ছড়ার বই ১০৬টি, গবেষণা ৭৬টি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ৬৯টি, ইতিহাসের ৬৪টি, শিশুতোষ উপন্যাস ৭১টি, ভ্রমণবিষয়ক ৬৪টি বই।

এছাড়া, ৬১টি অনুবাদ, ৪৪টি বিজ্ঞানের বই, ৩৬টি সায়েন্স ফিকশন, ২৯টি রচনা, ধর্ম ক্যাটাগরির ৩৩টি, কমিকস ক্যাটাগরির ৩১টি, নাটক ৩৪টি, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ২৭টি, রাজনীতি বিষয়ক ২৯টি বই, স্বাস্থ্য বিষয়ক ২৯টি বই এবং অভিধান সম্পর্কিত ১৯টি বই প্রকাশিত হয়েছে। অন্যান্য ক্যাটাগরিতে প্রকাশিত হয়েছে ২২২টি বই ।

বাংলা একাডেমি ১ কোটি ৩৬ লাখ টাকার বই বিক্রি করেছে, যা ২০২৩ সালে ছিলো ১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা এবং ২০২২ সালে ছিলো ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা।

মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি আটটি প্রকাশনা সংস্থা-কে চারটি বিভাগে পুরস্কৃত করেছে। বিষয় ও মানের দিক থেকে সর্বাধিক সংখ্যক মানসম্পন্ন বই প্রকাশের জন্য, কথাপ্রকাশ চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার লাভ করেছে।

এছাড়া শিল্প ও মানের দিক থেকে সেরা বই প্রকাশের জন্য প্রথমা প্রকাশ, জার্নিম্যান বুকস ও ঐতিহ্য প্রকাশনীকে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার দেয়া হয়।

ময়ূরপঙ্খী পাবলিকেশন শিশুদের জন্য সর্বোচ্চ সংখ্যক মানসম্পন্ন বই প্রকাশের জন্য রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত হয়। আর, অন্যপ্রকাশ প্রকাশনী, নিমফিয়া পাবলিকেশন এবং বেঙ্গল বুকস শ্রেষ্ঠ অলঙ্করণের জন্য কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার পায়।

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা