Skip to content

‘অন্য মাটিতে গড়া’, প্রকল্প নিয়ে পাল্টা জবাব মোদীর

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

লোকসভা নির্বাচনের ঘোষণা হতে কয়েক দিন বাকি। বিরোধী মঞ্চ এখনও ভাল করে মাঠে নামতে পারেনি। কিন্তু নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী প্রচার তুঙ্গে পৌঁছে গিয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক শিবির। গোটা দেশে ছুটে তিনি এক দিকে সরকারি প্রকল্প উদ্বোধনের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন। অন্য দিকে দুর্নীতি এবং পরিবারতন্ত্রের জোড়া ফলায় কংগ্রেস, এসপি, শিবসেনা, এনসি-র মতো বিরোধীদের বিঁধছেন। অন্য দিকে ঠিক ভোটের মুখে হাজার হাজার কোটি টাকার দেশজোড়া সরকারি প্রকল্পের শিলান্যাস নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলছেন কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা। আজ উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ে বিরোধীদের এই আক্রমণকে তাদের দিকেই ফিরিয়ে দিতে দেখা গেল মোদীকে। বিরোধীদের সতর্ক করে দিয়ে তিনি জানালেন মোদী ‘অন্য মাটিতে’ গড়া।

মোদী বলেন, সময়ের মর্যাদা রাখার জন্য তিনি অনেক সময়ই আজকাল ভিডিয়ো মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন করছেন। বিরোধীদের নিশানা করে মোদীর বক্তব্য, ‘‘এখন অনেকেই এত বিমানবন্দর, রেল স্টেশন, হাসপাতাল, কলেজের উদ্বোধন দেখে বলছেন এটা ভোটের সময় কি না! হে মহামান্যবরেরা শুনে রাখুন একটা সময়ে ভোটের আগে এই ধরনের ঘোষণাই হত শুধু। আমরা দেখেছি ৩৫ বছর আগে কতই না শিলান্যাস করা হয়েছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছু হয়নি। পাথর চুরি হয়ে গিয়েছে, যিনি পাথর বসিয়েছিলেন তিনিও উধাও! কিন্তু গত ১০ বছর ধরে দেশবাসী দেখেছেন, একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন হয়েছে। কিন্তু বিমানবন্দর, সড়ক, রেলওয়ে প্রকল্প, আইআইএম-সহ একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে। এখানে কোনও রকম ত্রুটি হয়নি। মোদী অন্য মাটিতে তৈরি।’’

আজমগড় থেকে আজ সমাজবাদী পার্টিকেও নিশানা করেছেন মোদী। ৭৮২টি উন্নয়ন প্রকল্পের শিলান্যাস করেন তিনি যার মধ্যে রয়েছে রেল, শহরের উন্নয়ন, সড়ক পরিবহণ, শিক্ষা, বিমানবন্দর-সহ একাধিক প্রকল্প। সব মিলিয়ে উত্তরপ্রদেশে প্রায় ৪২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের সূচনা হল আজ। স্থানীয় বিজেপি বিধায়ক দীনেশ লালের নামোচ্চারণ করে মোদী বলেন, ‘‘একটি পরিবার ভেবে নিয়েছে যে আজমগড় হল তাদের দুর্গ। জাতপাত আর ভোট ব্যাঙ্কের ভিত্তিতে তাদের এই ভাবনা। এই দুর্গ হল তাদের যারা স্বজনপোষণ, পরিবারবাদ, তোষামোদের রাজনীতি করে। তবে দীনেশের মতো যুবক তাদের সেই দুর্গকে ভেঙে দিয়েছে।’’ তাঁর দাবি, আজমগড়ের মানুষ এ বার বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। তাঁরা এই ধরনের বিষয়কে উত্তরপ্রদেশ থেকে মুছে দেবেন। মোদীর কথায়, ‘‘মানুষ এত দিন ধরে জাতপাত, তোষামোদের রাজনীতি, মাফিয়ারাজ দেখতেন। তাঁরাই এখন এখানে আইনের শাসন দেখছেন। উন্নয়নের পথে যাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ। একটা সময় আজমগড় ছিল চরমপন্থার জায়গা, জাতপাতের জায়গা, এখন আজমগড় হল উন্নয়নের ভরকেন্দ্র।’’

সমাজবাদী পার্টি (এসপি) প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত মুলায়ম সিংহ যাদব ২০১৪ সালে আজমগড় থেকে লোকসভা নির্বাচনে জিতেছিলেন৷ তার পরে তাঁর ছেলে অখিলেশ যাদব ২০১৯ সালে এই আসনেই জেতেন। তবে সমাজবাদী পার্টি বাইশের উপনির্বাচনে বিজেপির দীনেশ লাল যাদবের কাছে এই আসনে হেরে যায়। অখিলেশের পদত্যাগ করে করহাল থেকে বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন৷ যার ফলে এই আসনে আবার নির্বাচন হয়৷ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘এই পরিবারবাদের কারণে বিরোধীরা এতটাই হতাশ যে তারা মোদীকে গালি দেয়। তারা বলে যে মোদীর পরিবার নেই। তারা ভুলে গিয়েছে যে দেশের ১৪০ কোটি মানুষ মোদীর পরিবার। আরজেডি সভাপতি লালুপ্রসাদ যাদবকেও এই জবাব দিয়েছি। তিনি ৩ মার্চ একটি সমাবেশে আমাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন কেন আমার পরিবার নেই।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের
Google News,
X (Twitter),
Facebook,
Youtube,
Threads এবং
Instagram পেজ)



সংবাদ সূত্র